ইউটিউব টিভি 4k স্ট্রিমিং

আমরা জানি ইউটিউব একটি জনইপ্রিয় ভিডিও শেয়ারিং প্লাটফর্ম। আর যতই দিন যাচ্ছে ইউটিউবের জনপ্রিয়তা বেড়েই চলেছে যা আমরা নিজ চোখেই দেখতে পাচ্ছি।

বর্তমান সময়ে বেশিরভাগ মানুষ ইউটিউবে ভিডিও দেখতে পছন্দ করেন। এই জনপ্রিয় ইউটিউব প্লাটফর্মের আরেকটি জনপ্রিয় ফিচার বা সেবাক হচ্ছে ইউটিউব টিভি। বর্তমান প্রায় সব স্মার্ট টিভি গুলোতে ইউটিউব অ্যাপ দেওয়া থাকে। যদি না থাকে তাহলে আপনি টিভিতে থাকা ব্রাউজারের সাহায্যে ডাউনলোড করে নিতে পারেন।

ইউটিউব টিভি কি এবং কিভাবে দেখবেন

বর্তমান সময়ে অনেকের ঘরেই স্মার্ট টিভি রয়েছে। আর স্মার্ট টিভিতে জনপ্রিয় সোশ্যাল মিডিয়া ভিডিও প্ল্যাটফর্ম ইউটিউব দেখার সুবিধা রয়েছে। শুধু দরকার হবে স্মার্ট টিভির সাথে ইন্টারনেট সংযোগ। মূলত এটা হচ্ছে টিভিতে ইউটিউব।

তবে ইউটিউব টিভি ভিন্ন বিষয়। আপনার ব্যবহারকৃত কম্পিউটার বা স্মার্টফোন অথবা অন্য কোন ডিভাইস দিয়ে লাইভ টেলিভিশন দেখার অনুমতি দিয়ে থাকে ইউটিউব। আর ইউটিউবের নতুন এই ফিচার হচ্ছে ইউটিউব টিভি।

ইউটিউব টিভি দেখতে হলে আপনাকে হাই স্পিড ইন্টারনেট সংযোগ এবং অর্থ প্রয়োজন। ইমেইল এড্রেস এবং পাসওয়ার্ড দিয়ে ইউটিউব টিভিতে লগইন করা লাগে। তারপর সাবস্ক্রিপশন চার্জ দিয়ে ইউটিউব টিভি দেখার সুযোগ পাবেন। তবে দুঃখের বিষয় হচ্ছে ইউটিউব টিভি যুক্তরাষ্ট্রের  বাহিরে ব্যবহার করা যায় না।

স্মার্ট টিভির সাথে সকল কানেক্টর গুলো আলোচনা করা হলো

স্মার্ট টিভির সাথে অ্যান্ড্রয়েড ফোন কানেক্ট করবেন যেভাবে

বিভিন্ন উপায়ে স্মার্ট টিভির সাথে মোবাইল কানেক্ট করতে পারবেন। যেমনঃ ক্যাবলের সাহায্যে, কাস্টিংয়ের সাহায্যে, প্রযুক্তির সাহায্যে।

এইচডিএমআই ক্যাবলের সাহায্যে স্মার্ট টিভির সাথে ফোন কানেক্ট

প্রথমে আপনার একটি এইচডিএমআই (HDMI- High Definition Multimedia Interface) ক্যাবল লাগবে। বর্তমান স্মার্টটিভিগুলোতে এইচডিএমআই পোর্ট থাকে যেখান থেকে অডিও এবং ভিডিও উভয়ই স্থানান্তর করতে ব্যবহার করা যায়।

তবে সমস্যা হলো স্মার্টফোনগুলোতে এইচডিএমআই পোর্ট থাকে না। সমস্যার সমাধান আছে আপনি বাজার বিভিন্ন অ্যাডাপ্টার কিনতে পারবেন যেটা আপনার ফোনের টাইপ সি বা মাইক্রো ইউএসবি যাই থাকুক সেটার সাথে পোর্ট যুক্ত করে এইচডিএমআই পোর্ট এর রূপান্তর করতে পারবে।

এভাবে এইচডিএমআই ক্যাবল এর সাথে আপনার স্মার্টফোনকে স্মার্ট টিভির সাথে যুক্ত করতে পারবেন।

ইউএসবি ক্যাবলের মাধ্যমে টিভির সাথে মোবাইল ফোনের সংযোগ

আপনাকে আলাদা করে ইউএসবি ক্যাবল কিনতে হবে না। কারণ বর্তমানে স্মার্টফোন গুলোর প্রতিটি চার্জার একেকটি ইউএসবি ক্যাবল। যদি আপনার স্মার্ট টিভিতে ইউএসবি পোর্ট থাকে তাহলে ইউএসবি ক্যাবলের সাহায্যে আপনার ফোনটিকে টিভির সাথে সংযোগ ঘটাতে পারবেন।

তারবিহীন কাস্টিংয়ের মাধ্যমে টিভির সাথে অ্যান্ড্রয়েড ফোন কানেক্ট

আপনার কাছে যদি তার দিয়ে মোবাইলের সাথে টিভি সংযোগ এর বিষয়টা ঝামেলা মনে হয় তাহলে আপনি তারবিহীন কাস্টিং পদ্ধতি অবলম্বন করতে পারেন। একই ওয়াইফাই লাইনে থাকা ফোন বা ট্যাবলেট ডিভাইস গুলো টেলিভিশন স্ট্রিমিং করার একটি আধুনিক প্রক্রিয়া হচ্ছে কাস্টিং।

আপনি প্লে স্টোরে স্মার্টফোনের সাথে স্মার্ট টিভি কানেক্ট করার জন্য কাস্টিং অ্যাপ পাবেন। যেমন Allcast, Miracast, Screen Mirroring, chromecast, cast to TV ইত্যাদি। এই অ্যাপ গুলো ব্যবহার করে আপনার অ্যান্ড্রয়েড ফোনটিকে স্মার্ট টিভির সাথে সংযোগ করতে পারবেন।

এয়ারপ্লে প্রযুক্তির সাহায্যে অ্যাপলের সাথে টিভির সংযোগ

মূলত অ্যাপেলের সাথে টিভির সংযোগ করানোর জন্য অ্যাপেল তাদের নিজস্ব এয়ারপ্লায় প্রযুক্তি আবিষ্কার করেছে। মূলত অ্যাপেল টিভির সাথে অ্যাপেল ডিভাইসগুলোকে কানেক্ট করতেই এই প্রযুক্তি তৈরি করা হয়েছে। আইফোন বা আইপ্যাড থেকে যদি অ্যাপল টিভিতে ছবি, অডিও, ভিডিও পাঠান তবে তা এয়ারপ্লেতে আগে থেকেই সাজানো থাকতে হবে।

কিন্তু একই ওয়াইফাই নেটওয়ার্কে যদি ডিভাইস দুটি যুক্ত থাকে তাহলে অটোমেটিক একে অপরকে চিনতে পারবে এবং আপনার ফোনের সেটিংসে এয়ারপ্লে সংযোগ করে নিতে পারবেন।

ইউটিউব টিভি দেখুন 4k স্ট্রিমিং

আমরা হয়তো এটাও জানবো ধীরে ধীরে যত প্রকার মোবাইল, টিভি, মনিটর ইত্যাদি বের হচ্ছে সেগুলো বেসগিরভাগ 4K সাপোর্টেড। কিন্তু ইউটিউব টিভিতে এতোদিন 4K স্ট্রিমিং সুবিধা ছিলো না। আর যারা 4K তে ভিডিও দেখতে পছন্দ করেন তাদের কাছে এটি একটি বিরক্তির বিষয় বটে।

জনপ্রিয় ভিডিও প্লাটফর্ম ইউটিউব চলতি বছরের প্রথম দিকে একটি ব্লগ পোস্টের মাধ্যমে বিষয়টি সমাধানের প্রতিশ্রুতি দেয়। বিষয়টি হলো ইউটিউব টিভিতে 4k স্ট্রিমিং 4k প্লাস নামক ফিচারটি সমর্থন করত না। প্রায় চার বছরেরও বেশি সময় অপেক্ষা করার পর ইউটিউব টিভিতে 4k প্লাস নামের এই অ্যাডন যুক্ত করার সুযোগ দেওয়া হচ্ছে গ্রাহকদের।

ইউটিউব তার প্রতিশ্রুতি রেখেছে। এই সোমবার থেকে ইউটিউব টিভিতে 4k প্লাস নামের একটি নতুন অ্যাডন যুক্ত করার সুযোগ দেয়া হচ্ছে যা গ্রাহকদের ফোরকে স্ট্রিমিং চালু করার সুযোগ দিবে।

কোন ফিচার আপনার ডিভাইসে সমর্থন করাতে হলে অবশ্যই ওই ফিচারটির সমর্থনযোগ্য ডিভাইস দরকার হয়। এ ক্ষেত্রেও তাই টেলিভিশন এবং স্ট্রিমিং ডিভাইস অবশ্যই 4k স্ট্রিমিং সমর্থন যোগ্য হতে হবে। তাছাড়া এই অ্যাডন টির সুবিধা হল ডিভিআর থেকে ফোন অথবা ট্যাবলেটের সরাসরি রেকর্ডিং ডাউনলোডের সুযোগ রয়েছে।

এই ফিচারটি ব্যবহার করতে হলে আপনাকে প্রতিমাসে বাড়তি ১৯.৯৯ ডলার খরচ করতে হবে। কারণ ফিচারটি ভ্রমণকারীদের জন্য দুর্দান্ত একটি ফিচার হতে চলেছে। আগে বেসিক ইউটিউব টিভি প্যাকেজ এর সাথে একসঙ্গে তিনটি আলাদা ডিভাইসের স্ট্রিমিং করার সুবিধা থাকতো। তবে এখন 4k প্লাস অনির্দিষ্ট সংখ্যক ডিভাইসে স্ট্রিমিং করার সুবিধা দিবে।

4k স্ট্রিমিং এর সুবিধা অসুবিধা

বর্তমান সময়ের সাধারণ মানুষের জন্য সবচেয়ে উচ্চ মানের এবং হাই ডেফিনেশন কন্টেন্টের রেজুলেশন হচ্ছে ফোরকে (4k)। 4k স্ট্রিমিং এর সবচেয়ে বড় সুবিধা হলো ভিডিও কনটেন্ট গুলো খুব ভালোভাবে ইনজয় করা যায়। একেবারে পানির মত পরিষ্কার বা ক্লিয়ার দেখা যায়। কোনোকিছুর 4K ভিডিও দেখলে মনে হবে আপনি সরাসরি দেখছেন।

4k স্ট্রিমিং এর প্রথম অসুবিধাটি হচ্ছে এটি ব্যবহার করার জন্য অনেক বেশি রেজুলেশন যুক্ত ডিসপ্লে প্রয়োজন হয় যা বাজারে খুব কমই আছে এবং এর দাম অনেক বেশি হয়ে থাকে।

4k ডিসপ্লে না থাকলে আপনি 4k রেজুলেশন ভিডিও উপভোগ করতে পারবেন না। তাছাড়া 4k  ভিডিও স্ট্রিমিং করার জন্য হাই স্পিড ইন্টারনেট সংযোগ প্রয়োজন হয়।

আর আমাদের দেশের ইন্টারনেট ব্যবস্থা খুবই খারাপ। খুব কম জায়গায় আপনি হাই স্পিড ইন্টারনেট সংযোগ পাবেন।

বর্তমানে 4k স্ট্রিমিং কেনো জনপ্রিয়

স্বাভাবিকভাবে মানুষ যেকোনো কিছুতেই ভালো জিনিসটা খোঁজে। তবে ভালো জিনিসটা পেতে হলে একটু বেশি খরচ করতে হয় যা সবার পক্ষে সম্ভব হয়ে ওঠে না।

ভিডিও উপভোগের সবচেয়ে ভালো রেজুলেশন হচ্ছে 4K স্ট্রিমিং। সবথেকে উচ্চ মানের এবং হাই ডেফিনেশনের কন্টেন্টের রেজুলেশন হওয়ায় ফোরকে (4K) স্ট্রিমিং সবার কাছে জনপ্রিয়।

চলুন সবথেকে নিম্নমানের রেজুলেশন থেকে উচ্চমানের রেজুলেশন গুলো এক নজরে দেখে নেয়া যাক-

  • রেজুলেশন ১৪৪পি = ডাইমেনশন ২৫৬ × ১৪৪
  • রেজুলেশন ২৪০পি = ডাইমেনশন ৩২০ × ২৪০
  • রেজুলেশন ৩৬০পি = ডাইমেনশন ৪৮০ × ৩৬০
  • রেজুলেশন ৪৮০পি = ডাইমেনশন ৮৫৪ × ৪৮০
  • রেজুলেশন ৭২০পি (এইচডি) = ডাইমেনশন ১২৮০ × ৭২০
  • রেজুলেশন ১০৮০পি (ফুল এইচডি) = ডাইমেনশন ১৯২০ × ১০৮০
  • রেজুলেশন ১৪৪০পি = ডাইমেনশন ২৫৬০ × ১৪৪০
  • রেজুলেশন ২১৬০পি (4K) = ডাইমেনশন ৩৮৪০ × ২১৬০
Share your love
Hemal Hasan
Hemal Hasan
Articles: 28