গাড়িতে কেন নিরেট টায়ার ব্যবহার করা হয় না

আমাদের অনেকেরই এরকম মনে হয় যে, যদি গাড়িতে এমন কোন টায়ার ব্যবহার করা যেতো যেটাতে কোন বাতাস ভরা লাগেনা বা দীর্ঘদিন অনায়াশেই ব্যবহার করা যাবে।

আসলে এরকমটা যে ভবিষ্যতে হবে না তা বলাও যাচ্ছে না। তবে বর্তমানে কিন্তু যানবাহনের টায়ারগুলোতে বাতাস ভরা লাগে। আজকে নিরেট টায়ার কি এবং গাড়িতে কেনো নিরেট টায়ার ব্যবহার করা হয় না সেই সম্পর্কে জানার চেষ্টা করবো। তবে গাড়িতে কেন নিরেট টায়ার ব্যবহার করা হয় না তা জানার পূর্বে নিরেট টায়ার কি তা জেনে নেওয়া যাক।

নিরেট টায়ার কি

যে সকল টায়ারে হাওয়া ভরতে হয় না সেই টায়ারগুলোকে নিরেট টায়ার বলা হয়। নিরেট টায়ার সাধারনত সচরাচর দেখা যায় না। কারন আমরা সব গাড়িতে হাওয়া ভর্তি টায়ার দেখতে পাই। নিরেট টায়ারগুলোতে পুরো টায়ারের আবরন থাকে।

Pneumatic Tier – হচ্ছে যে সকল টায়ারে বাতাস ভরা লাগে।

নিরেট টায়ার কেন ব্যবহার করা হয় না

প্রথমত নিরেট টায়ারের ওজন অনেক বেশি হয় বাতাস ভরা টায়ার থেকে। আর ওজন বেশি হওয়া মানেই অনেক সমস্যা সৃষ্টি হওয়া।

ওজন বেশি হওয়ার জন্য ঘূর্ণণজনিত ঘর্ষণের (Rolling friction) মান বেশি হবে। আর ঘর্ষণের মান বেশি হওয়ার ফলে টায়ার অতিরিক্ত পরিমানে ক্ষয় যাবে। যার ফলে প্রতিমাসে একটা করে নতুন টায়ার কিনা লাগতে পারে , যা অনেকের পক্ষে কষ্টসাধ্য।

ওজন বেশি হওয়ার জন্য গাড়ির ক্ষমতাও হ্রাস পাবে। সেক্ষেত্রে আপনার গাড়ি সঠিক পার্ফমেন্স দেখাতে সক্ষম হবে না। যদিও এরকম গাড়ি তৈরি হলে গাড়ির ইন্জিনের ক্ষমতাও বৃদ্ধি করা হবে। তারপরেও দেখা যাবে রাস্তার ঘঠনের উপর আপনার ভারি টায়ার গাড়ির ক্ষমতা হ্রাস করে ফেলতেছে।

ওজন বেশি হওয়ার জন্য ইঞ্জিন ও জ্বালানি খরচের ওপর প্রভাব পরবে। আর বর্তমানে জ্বালানির প্রচুর দাম।

ওজন বেশি হওয়ার জন্য গাড়ির গতিও হ্রাস পাবে। এরকম টায়ারের জন্য যদি গাড়ির গতি হ্রাস পায় তাহলে ভাবুন ফেরারি বা পোরসে গাড়ির নাম ডাকের কি হবে।

দ্বিতীয় পয়েন্ট হচ্ছে,

 গাড়ির চাকা নিরেট অর্থাৎ কঠিন। আর আমরা জানি, কঠিন পদার্থের অনুগুলো সবসময় কম দূরুত্বে অবস্থান করে থাকে। অর্থাৎ আন্তঃআণবিক দুরত্ব কম। আর তার ফলে টায়ারের ভিতরের কোন কম্পন খুব সহজেই সঞ্চারিত হতে পারে। যদি কোন ক্রমে আপনার গাড়ি কোন গর্তে বা বাম্পারের মুখোমুখি পরে তাহলে একবার ভাবুন কি হতে পারে।

তাছাড়া সর্বশেষ কারনটি হলো (অবশ্যই বিডিপপুলারের মতে)

নিরেট টায়ারের দাম অনেক বেশি। কারন এসকল টায়ার বানানো হয় রাবার বা প্লাষ্টিকের পলিমার ব্যবহার করে। আর আমরা জানি আমাদের দেশ একটি মধ্যবিত্ত আয়ের দেশ। এখানে কোন কিছুর দাম বেশি হলে মানুষের চলতে কঠিন হয়ে যায়।

নিরেট টায়ার কি কাজে লাগে

কিছু কিছু গাড়িতে নিরাট টায়ার ব্যবহার করা হয়। উপরে যে গাড়িটি দেখা যাচ্ছে এই ধরনের গাড়িতে নিরেট টায়ারের ব্যবহার করা হয়। কারন এসকল গাড়ির গতি তেমন হয় না। তাই ঘূর্ণণজনিত কোন সমস্যা এখানে সৃষ্টি হয় না। তাছাড়া এই ধরনের গাড়িগুলোকে উঁচু নীচু বিভিন্ন রকম জমিতে কাজ করতে হয় বা করা যায়। আর টায়ার নিরেট হওয়ার কারনে পাংচার হওয়ার ভয় নাই।

আবার বিশাল ওজন বহন করার কারনে যে প্রচুর চাপ সৃষ্টি হয় তা এই নিরেট টায়ার বহন করতে পারে অনায়াশেই। আর যদি হাওয়া ভরা টায়ার ব্যবহার হতো তাহলে ভারের কারনে দুর্ঘটনার শংঙ্কাও থাকতো। আশা করি ব্যাপারটি বুঝতে পেরেছেন।

ভবিষ্যতে নিরেট টায়ার ব্যবহারের সম্ভাবনা কেমন

গাড়ির টায়ারগুলোতে হাওয়া ভরতে হবে না এমন টায়ার নিয়ে কাজ ক্রুছে অনেক কোম্পানি। সকল দিক মাথায় রেখে নিরেট জাতীয় টায়ার তৈরি করছে। অনেকে বিজ্ঞপ্তি দেওয়া শুরু করে দিয়েছে। টায়ার পাংচার ও হাওয়া ভরা একটি সমস্যার কারন।

তবে সেই নিরেট টায়ারগুলোতে হাওয়া ভরা ছাড়া গাড়িতে ব্যবহার করা যাবে। তবে নিরেট জাতীয় টায়ারগুলোর ধরন ও নাম ভিন্ন হয়ে আসতে পারে সামনের দিনগুলোতে। তাই বলা যায় ভবিষ্যতে নিরেট টায়ার ব্যবহারের সম্ভাবনা রয়েছে।

Share your love
Salman Shemul☑️
Salman Shemul☑️
Articles: 20