ক্ষতিকর সফটওয়্যার কি

ক্ষতিকর সফটওয়্যার

আপনি যদি কম্পিউটার ব্যবহার করেন এবং আপনার কম্পিউটারের সাথে ইন্টারনেট কানেকশন থাকে তাহলে আপনি নিশ্চই কম্পিউটার ভাইরাসের সাথে পরিচিত থাকবেন। সেটা যেকোন ভাবে হতে পারে। যেমন ধরুন আপনি আপনার বন্ধুর কাছ থেকে জানতে পারলেন অথবা ইন্টারনেট ঘাটতে ঘাটতে জেনে গেলেন।

আসলে ভাইরাস শব্দটির সাথে আমরা কিভাবে পরিচিত? আমাদের মানব শরীরে বিভিন্ন ধরনের যে রোগবালাই হয় তা মূলত বিভিন্ন ধরনের ভাইরাসের আক্রমনে হয়। কম্পিউটারেও ভাইরাস আক্রমন করে বিভিন্ন ধরনের রোগবালাই ঘটিয়ে থাকে। তবে আশঙ্কা করার কিছু নেই কারন সকল ভাইরাসের সাথে এর প্রতিরোধ সিস্টেমও থাকে।

কম্পিউটার সিস্টেমে যে ধরনের ভাইরাস থাকে তার একটি নাম রয়েছে। একে সাধারনত ম্যালওয়্যার বলা হয়। যা Malicious Software এর সংক্ষিপ্ত রূপ।

তাহলে চলুন জেনে নেয়া যাক ম্যালওয়্যার কি?

ম্যালওয়্যার হলো এমন এক জাতীয় কম্পিউটার সফটওয়্যার যা অপেক্ষাকৃত দূর্বল কম্পিউটার এবং মোবাইল এর স্বাভাবিক কার্যক্রমকে বাধাগ্রস্থ করে। বাধাগ্রস্থ করার কারন হলো আপনার গোপন তথ্য সংগ্রহ করতে, বা কোন সুরক্ষিত নেটওয়ার্কে অবৈধ অনুপ্রবেশ করতে, বা বিভিন্ন ধরনের অবাঞ্ছিত বিজ্ঞাপন দেখানোর জন্য।

আসলে এ ধরনের ক্ষতিকর সফটওয়্যার কে কম্পিউটার ভাইরাস বলা হতো আগে। কারন কম্পিউটার চলাকালীন সময়ে সিস্টেমে অবস্থিত কোন সফটওয়্যারের কারনে যদি অনিচ্ছাকৃত ভাবে কম্পিউটারে কোন ধরনের অসুবিধার সৃষ্টি হয় তবে তাকে কি ম্যালওয়্যার বলা যাবে। নিশ্চই নয়।

ম্যালওয়্যার কিভাবে কাজ করে?

ম্যালওয়্যার সফটওয়্যার মূলত প্রথমত কম্পিউটারে কোন এক্সিকিউটেবল ফাইলের সঙ্গে তাদের সফটওয়্যারের অংশবিশেষ জুরিয়ে নেয়। আর একবার জুরিয়ে নেয়ার পর শুরু হয় আসল কাজ। এবার সে তার নির্দিষ্ট উদ্দ্যেশ্য পূরন করার জন্য তৈরি। যেমন, মেশিনের কোন অ্যাপ্লিকেশন, সিস্টেম প্রোগ্রাম, ইউটিলিটি, তথ্য চুরি, ব্যাংক একাউন্ট নম্বর, পাসওয়ার্ড সংগ্রহ সহ ইত্যাদি আরো যত ধরনের অনৈতিক কাজ আছে তা সবই করা সম্ভব।

আসলে ম্যালওয়্যার বা ভাইরাস যাই বলুন না কেনো এটি মূলত মেশিন কোড। অর্থাৎ কিছু প্রোগ্রামিং ল্যাঙ্গুয়েজ কোডের দ্বারা এ ধরনের ম্যালওয়্যার বা ভাইরাস তৈরি হয়। এবং এর সাথে থাকে কিছু খারাপ উদ্দ্যেশ্য।

আর এ ধরনের ম্যালওয়্যার বা ভাইরাস কেই ক্ষতিকর সফটওয়্যার বলে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *