কম খরচে কথা বলার অ্যাপ বাংলাদেশে

বিটিসিএল (বাংলাদেশ টেলিকমিউনিকেশন কোম্পানি লিমিটেড) সম্প্রতি একটি মোবাইল এপ্লিকেশন বের করেছে যার নাম হলো আলাপ। এপ্লিকেশনটি দিয়ে আপনার বাংলাদেশের সবচেয়ে সাশ্রয়ী রেটে শুধুমাত্র (বর্তমানে) বাংলাদেশের যেকোনো লোকাল নাম্বারে কথা বলতে পারবেন। এটি মূলত একটি আইপি কলিং এপ্লিকেশন।

আপনি যদি আলাপ অ্যাপটি এখনো ডাউনলোড করে না থাকেন তাহলে আর দেরি না করে সেরা সুবিধার স্বাদ পেতে এখনি ডাউনলোড করে নিন।

আলাপ এপস টি কিভাবে সেটআপ করবেন ও কিভাবে এটি ব্যবহার করতে হয় সেই সম্পর্কে পুরো বিস্তারিত নিচে দেওয়া হলো। পুরো পোষ্টটি পড়লে অবশ্যই বুঝতে পারবেন কিভাবে এটি ব্যবহার করে কম কলরেটে কথা বলবেন বাংলাদেশের যেকোন লোকাল নাম্বারে।

আলাপ একাউন্ট খুলতে যা যা লাগবে

  • আপনি যে সিম দিয়ে আলাপ অ্যাকাউন্ট খুলতে চাচ্ছেন সেই সিমের মোবাইল নম্বর লাগবে।
  • আপনার এনআইডি কার্ড বা স্মার্ট কার্ড লাগবে।
  • Wi-fi অথবা মোবাইল ডাটা যেকোনো একটি দিয়ে ইন্টারনেট সংযোগ থাকলেই হবে।

অ্যাপটির পরিপূর্ণ সুবিধা পেতে হলে অবশ্যই আপনার ভোটার জাতীয় পরিচয়পত্র (NID) দিয়ে রেজিষ্ট্রেশন করতে হবে এবং ছবি দিয়ে ভেরিফাই করতে হবে। অনেকটা বিকাশ অ্যাপের মত বলা যায়। যেহেতু এটি একটি সরকারি অ্যাপ তাই এর উপর ভরসা রাখা যায়। যাই বলুন একটু বেশি সুবিধা পেতে কিছুটা কষ্টতো করতেই হবে।

কি কি সুবিধা পাচ্ছেন এই অ্যাপে?

  • একটি নতুন নাম্বার পাবেন। প্রথম ৫ ডিজিট হবে ০৯৬৯৬ তারপরের ৬ ডিজিট হবে আপনার মোবাইল নম্বরের শেষের ৬টি সংখ্যা।
  • কম খরচে কথা বলতে পারবেন। (৩৬ পয়সা মিনিট) বাংলাদেশের যেকোন লোকাল নাম্বারে।
  • অ্যাপ খেকে অ্যাপে ফ্রি অডিও ও ভিডিও কলের সুবিধা।
  • কল ফরওয়ার্ডিং সুবিধা।
  • ভিডিও কনফারেন্সিং সুবিধা।
  • দেশের বাহিরেও সাশ্রয়ী রেটে কথা বলার সুবিধা। (আপডেট করা হচ্ছে)
  • বিকাশ বা নগদের মাধ্যমে রিচার্জ করার সুবিধা।
  • প্রথম বার রেজিস্ট্রেশনে ১৫ মিনিট ফ্রি।
  • সিকিউরিটি সুবিধা তো থাকছেই।

আলাপ অ্যাপ ব্যবহার করার জন্য যা যা করতে হবে

প্রথমে অ্যাপটি ডাউনলোড করার জন্য প্লে স্টোরে গিয়ে Alaap লিখে সার্চ দিলে অ্যাপটি পেয়ে যাবেন। অনান্য অ্যাপ যেভাবে ইন্সটল করেন এই অ্যাপসটি একই ভাবে ইন্সটল করবেন।

ইন্সটল করা হয়ে গেলে ওপেন করুন। দুটি জিনিস আগে যোগার করে নিন অ্যাপটি ব্যবহারের জন্য। এনআইডি কার্ড ও মোবাইল নম্বর।

ওপেন করার পর আপনার মোবাইল নম্বর দিন (যে নাম্বারে একাউন্ট করতে চাচ্ছেন) অনেকটা হোয়াটসঅ্যাপ বা ইমোর অ্যাকাউন্ট খোলার মতো।

যে নম্বরটি দিয়েছেন ঐ নাম্বারে একটি ওটিপি কোড আসবে। সাথে সাথে কোডটি বসিয়ে দিন। ভেরিফাই হয়ে গেলে আপনার অ্যাকাউন্ট খোলা শেষ। আপনি প্রথম ধাপ শেষ করে ফেলেছেন।

প্রথম ধাপ শেষ করে আপনি এটি ব্যবহার করতে পারবেন। শুধুমাত্র অ্যাপ থেকে অ্যাপে কল করা যাবে। তবে বলে রাখা ভালো ব্যবহারে সমস্যা হতে পারে। আর এজন্যই আপনাকে দ্বিতীয় ধাপ অর্থাৎ রেজিষ্ট্রেশন করতে হবে।

দ্বিতীয় ধাপে আপনাকে রেজিষ্ট্রেশন করতে হবে। এজন্য নিচের দেখানো ছবির মতো প্রথমে My Account এ ক্লিক করুন।

মাই একাউন্ট অপশনে ক্লিক করলে নিচের ছবির মতো একটি পেজ আসবে এবং সেখানে নিচে থাকা NID Verification এ ক্লিক করে ভেরিফিকেশন করতে হবে।

ভেরিফিকেশন করার জন্য আপনার এনআইডির প্রথম ও দ্বিতীয় পিঠের ছবি তুলুন নির্দ্বিষ্টভাবে। পরের ধাপে আপনার ইনফর্মেশন গুলো অটোমেটিকভাবে পূরণ হয়ে যাবে। তারপর আপনার মুখের ছবি তুলুন। এবং শেষ পর্যায়ে ভেরিফিকেশন বাটনে ক্লিক করে ভেরিফাই হয়ে যাবে।

সব কিছু ঠিকঠাক থাকলে কোন সমস্যার সন্মুখীন হবেন না। তারপরও যদি রেজিষ্ট্রেশন করতে কোন সমস্যার সন্মুখীন হন অবশ্যই কমেন্টস করে জানাবেন।

কিভাবে আলাপ অ্যাপে ব্যালেন্স রিচার্জ করবেন

রিচার্জ করার জন্য নিচের ছবির মতো হোমপেজ থেকে রিচার্জ অপশনে যান।

এখান থেকে যে মাধ্যমে রিচার্জ করবেন তা সিলেক্ট করুন।

আলাপ অ্যাপে রিচার্জ নামের একটি অপশন পাবেন সেখানে ক্লিক করুন। তারপর আপনি যেটা (বিকাশ, নগদ, রকেট) ব্যবহার করে রিচার্জ করতে চান সেটা সিলেক্ট করে টাকার অ্যামাউন্ট লিখে কন্টিনিউ করুন। 

বিকাশে করলে মোবাইল নং দিয়ে ওকে দিলে ওটিপি কোড দিয়ে বিকাশের পাসওয়ার্ড দিলেই রিচার্জ হয়ে যাবে। আর ব্যাংক থেকে করতে চাইলে সেখানে প্রতিটা নিয়ম দেওয়া রয়েছে, সেই নিয়ম অনুসরন করে রিচার্জ করতে পারবেন। আর রিচার্জ করা সম্পন্ন হলেই আপনার পছন্দের যেকোনো লোকাল নাম্বারে কল করে কথা বলতে পারবেন।

কেনো আলাপ অ্যাপ আপনার জন্য?

বর্তমানে যোগাযোগের অন্যতম একটি মাধ্যম হচ্ছে মোবাইল ফোন। আর মোবাইল ফোনে কথা বলে আমরা অনেক টাকা খরচ করে থাকি। এমনিতে ফোনে কথা বললে প্রতি মিনিটে ৬০ পয়সার বেশি কেটে নেয় কিন্তু আলাপ অ্যাপ ব্যবহার করে আপনি কম খরচে কথা বলতে পারবেন।

আমাদের সব জায়গায় হয়তো মোবাইল নেটওয়ার্ক ভালো না কিন্তু আপনার ইন্টারনেট কানেকশন ভালো হলে আপনি কোন সমস্যা ছাড়া ঘন্টার পর ঘন্টা কথা বলতে পারবেন আলাপ অ্যাপ দিয়ে। সাধারণত মোবাইল রিচার্জ করলে সেই টাকার মেয়াদ ১ মাস পর্যন্ত মেয়াদ থাকে।

কিন্তু আলাপের টাকার কোনো মেয়াদ নেই। আলাপ অ্যাপ ব্যবহার করে কারো সাথে কথা বললে সে আপনার মোবাইল নম্বর পাবে না। ফলে পরবর্তীতে আপনাকে ফোন দিয়ে কেউ ডিস্টার্ব করতে পারবে না।

আলাপ অ্যাপের বিকল্প – (আলাপ অল্টারনেটিভ)

আপনারা ইতিমধ্যে জেনেছেন যে আলাপ হচ্ছে BTCL কলিং অ্যাপ। বর্তমানে প্লে স্টোরে এরকম আরও কলিং অ্যাপ পাওয়া যায়। সেরকম কয়েকটি অ্যাপ আপনাদের সামনে তুলে ধরা হলোঃ

  • Truecaller (ট্রুকলার)
  • Phone by Google (ফোন বাই গুগল)
  • Kotha (কথা)
  • Dingtone Phone (ডিংটন ফোন)
  • Brilliant Connect (ব্রিলিয়ান্ট কানেক্ট)

আলাপ অ্যাপ ব্যবহারের অসুবিধা

আলাপ অ্যাপের কিছু অসুবিধাও রয়েছে। যদি আপনার ভালো নেট কানেকশন না থাকে তাহলে কল দিলে কল যাবে না। মোবাইল ব্যাংকিং (বিকাশ, নগদ ইত্যাদি) ছাড়া আলাপ অ্যাপে আপনি টাকা রিচার্জ করতে পারবেন না। এগুলো ছাড়া এই অ্যাপের অসুবিধা নেই বললেই চলে।

বিদেশে গেলে আলাপ অ্যাপ ব্যবহার করা যাবে কি?

এই প্রশ্নের উত্তর হচ্ছে হ্যা। আপনি আলাপ অ্যাপ বিদেশ থেকে ব্যবহার করতে পারবেন। এর জন্য আপনার বন্ধু-বান্ধব আত্মীয়-স্বজন যে কাউকে দেশ থেকে আলাপ অ্যাপ রেজিস্ট্রেশন করে দিতে হবে। তারপরও আপনি বিদেশ থেকে আলাপ অ্যাপ ডাউনলোড করে লগইন করতে পারবেন ওটিপি কোড ব্যবহার করে।

বিশ্বের যে কোন প্রান্ত থেকে আপনার আলাপ নম্বরে যে কেউ ডায়াল করতে পারবে। কারণ এতে রয়েছে বিশ্বব্যাপী কলিং সিস্টেম।

Share your love
Hemal Hasan
Hemal Hasan
Articles: 28