ইলন মাস্কের খাদ্য সংকট মোকাবেলায় অভিনব উদারতা

Elon Musk

বর্তমান বিশ্বে আমরা যাকে নিয়ে সবচেয়ে বেশি মাতামাতি করি তিনি হচ্ছেন ইলন মাস্ক। তার সাফল্য নিয়ে আমরা সব সময় বেশি ব্যস্ত থাকি। তিনি কিরকমইনা সাফল্য অর্জন করে ফেলেছেন ইতিমধ্যেই। স্টিভ জবস, বিল গেটস সহ আরও গুরুত্বপূর্ণ ব্যক্তিবর্গদের থেকেও বর্তমানে সবচেয়ে বেশি ইলন মাস্কের সাফল্যগাথা আলোচনা করা হয়।

ইতিমধ্যে তিনি একটি ঘোষণা দিয়েছেন যা আমাদের সবাইকে অনুপ্রেরণা যোগায়। বাংলাদেশের সবচেয়ে বড় সংবাদ সংস্থার প্ল্যাটফর্ম প্রথম আলো থেকে জানা যায় যে, ইলন মাস্ক জাতিসংঘকে চ্যালেঞ্জ করে বলেছেন তিনি গোটা বিশ্বের খাদ্য সংকট দূর করবেন তার শেয়ার বিক্রি করে।

করনা সংকট মোকাবেলায় গোটা বিশ্ব এখন দুর্বিষহ। অনেক দেশই ইতিমধ্যে করনা সংকট মোকাবেলা করে আগের অবস্থায় ফিরে যেতে চেষ্টা করতেছে কিন্তু অত্যন্ত দুর্বল এবং গরিব দেশগুলোর ক্ষেত্রে এ ধরনের সংকট মোকাবেলা করে আগের অবস্থানে ফিরে যেতে একটু বেগ পেতে হচ্ছে। সেখানে যেমন চিকিৎসা সংকট রয়েছে ঠিক তেমনি খাদ্য সংকটের অভাব নেই।

বাংলাদেশের প্রেক্ষাপট একটুখানি ভিন্ন। যদিও আমরা সামনাসামনি কোন সংকট মোকাবেলায় সাফল্য দেখে কিন্তু তদুপরি বাস্তবতা আরো অনেক কঠিন হয়ে থাকবে। বাংলাদেশের ভিতরে এমন অনেক ধরনের মানুষ এবং পরিবার রয়েছে যারা প্রতিনিয়ত নিজেদের জীবিকা নির্বাহ করার জন্য যুদ্ধ করতেছে। অনেকেই আবার একবেলা খেয়ে দুবেলা না খেয়ে দিন কাটিয়ে দেন। যদিও আমরা এসব বাস্তবতা ঘরে বসে থেকে উপলব্ধি করতে পারিনা।

যাই হোক জাতিসংঘের বিশ্ব খাদ্য কর্মসূচি এর পরিচালক হলেন ডেভিড বিজলি। তিনি বিশ্বের খাদ্য সংকট মোকাবেলা করার জন্য অতি ধনীদের এগিয়ে আসার আহ্বান জানিয়েছিলেন। ডেবিট বিজলী বলেছিলেন ইলন মাস্ক এর মত যারা অতিধনী রয়েছেন তাদের ক্ষেত্রে তাদের সম্পদের সামান্য অংশ দান করা হয় তাহলেই মিটে যাবে বিশ্বের খাদ্য সংকট।

বিশ্বের খাদ্য সংকট মোকাবেলা করার জন্য প্রায় ৬০০ কোটি ডলার প্রয়োজন বলেছিলেন ডেভিড বিজলী। তার মতে বিশ্বজুড়ে প্রায় ৪ কোটি ২০ লাখ মানুষ চরম খাদ্য সংকটে ভুগছে। বিজলির এই দাবির সত্যতা প্রমাণ করার জন্য ইলন মাস্ক তাৎক্ষণিক শেয়ার বিক্রি করার মাধ্যমে ওই পরিমাণ অর্থ জোগাড় করার ঘোষণা দিলেন টুইটারে। বিজলি তার টুইটারে বলেন আমরা যদি ঐ সকল চরম খাদ্যসংকটে ভুগা মানুষদের কাছে সাহায্য নিয়ে এখন পৌঁছাতে না পারি তাহলে যেকোনো সময় তারা মারা যেতে পারে।

কিন্তু এক্ষেত্রে ইলন মাস্ক তার সম্পদ থেকে ৬০০ কোটি ডলার বিশ্ব খাদ্য সংকট মোকাবেলায় দিয়ে দেবেন কিন্তু কিভাবে ৬০০ কোটি ডলারে বিশ্বের খাদ্য সংকট মিটবে তার ঠিক ঠাক ব্যাখ্যা দিতে হবে। এবং যদি খাদ্য সংকট মোকাবেলার সঠিক ব্যাখ্যা দিতে পারেন তাহলে এবার মাস্ক ঘোষণা দিয়েছেন তাৎক্ষণিক টেসলার ৬০০ কোটি ডলারের শেয়ার বিক্রি করে ওই পরিমাণ অর্থের জোগান দিবেন।

ইলন মাস্কের যে পরিমাণ সম্পদ বর্তমানে রয়েছে ওই পরিমাণ সম্পদ থেকে মাত্র ২% বিক্রি করে দিলেই ৬০০ কোটি ডলারেরও বেশি পরিমাণে অর্থ পাওয়া যাবে।

এদিক থেকে অন্যান্য যারা ধনকুবের রয়েছেন তাদের থেকেও ইলন মাস্ক এখন আমার আরো বেশি ভালো লাগতেছে। এ ধরনের একটি টুইটারে যে ইলন মাস্ক সাড়া দিয়েছেন যারা তার মতই ধনকুবের হয়েও বিশ্বের কোনো সমস্যা মোকাবেলায় সাড়া দেননি এ জন্যই তাকে আরো বেশি ভালো লাগে এখন থেকে।

যাইহোক ইলন মাস্কের এ ধরনের ভালোবাসার নজির আপনাদের কাছে কেমন লেগেছে তা নিশ্চয়ই জানাতে ভুলবেন না।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *