ফ্রিল্যান্সিং করার জন্য বর্তমান সময়ের সেরা ৫টি ওয়েবসাইট

বর্তমান সময়ে সারা বিশ্বের প্রায় সব বয়সের মানুষের মধ্যে ফ্রিল্যান্সিংকে পেশা হিসেবে বেছে নেওয়ার প্রবণতা লক্ষ্য করা যায়। ফ্রিল্যান্সিং করার মাধ্যমে ঘরে বসে অনেক টাকা আয় করা যায়। ফ্রিল্যান্সিং করার জন্য আপনি যদি সেরা ওয়েবসাইট এর খোঁজ করে থাকেন তাহলে আপনি সঠিক জায়গায় এসেছেন।

এই আর্টিকেলে আমরা আপনাদের সামনে তুলে ধরবো ফ্রিল্যান্সিং করার জন্য উপযোগী সেরা কয়েকটি ওয়েবসাইট। এই ওয়েবসাইটগুলোতে ফ্রিল্যান্সিং করে অনেকেই অনেক টাকার মালিক হয়েছেন। একজন সফল ফ্রিল্যান্সার হওয়ার অবশ্যই আপনাকে পরিশ্রমী এবং অধ্যাবসায় করতে হবে।  মানুষ আপনাকে নিয়ে বিভিন্ন কথা বলবে সে সকল সমালোচনা সহ্য করার ক্ষমতা রাখতে হবে।

নিজেকে ভালোভাবে প্রস্তুত করে এখানে বর্ণিত ওয়েবসাইটগুলো থেকে যেকোনো একটিতে কাজ শুরু করে দিন। ফ্রিল্যান্সিং করার জন্য কোন ওয়েবসাইটটি সবচেয়ে ভালো তা বলা কঠিন। ফ্রিল্যান্সিং দুনিয়ায় আমরা অর্থ উপার্জন করার জন্য আগমন করি, আবার বিভিন্ন কারণে প্রস্থানও করি। বিগত কয়েক বছর ধরে আমাদের দেশে ফ্রিল্যান্সিংয়ের বিষয়টি খুব জনপ্রিয়তা লাভ করেছে।

আমাদের দেশের বেশিরভাগ মানুষেরই মনে করেন ফ্রিল্যান্সিং হচ্ছে ঘরে বসে নিজের ইচ্ছানুরূপ সময়ে কাজ করার মাধ্যমে অর্থ উপার্জন করা। তাদের এই ধারণা একেবারেই ভুল না। আপনি ফ্রিল্যান্সিং ওয়েবসাইটের মাধ্যমে কোন কাজটি করে অর্থ উপার্জন করবেন সেটা না জেনে মাঠে নামাটাই বোকামি। আর এই বোকার মত কাজ করার কারণে অনেকেই হতাশ হয়ে কাজ ছেড়ে দিয়েছেন। কোন অভিজ্ঞতা অর্জন না করে ফ্রিল্যান্সিং ওয়েবসাইটে প্রোফাইল তৈরি করে আশানুরূপ ফল পাবেন না।

ফ্রিল্যান্সিং করার জন্য সেরা কয়েকটি ওয়েবসাইট

বিগত কয়েক বছর ধরে ফ্রিল্যান্সিং ওয়েবসাইটগুলোতে কাজের ধরন এবং চাহিদার পরিবর্তন হয়েছে। আগের চাইতে এখন নতুনদের জন্য এখানে কাজ করার জন্য প্রতিকূল পরিবেশ সৃষ্টি হয়েছে। বর্তমানে কয়েক হাজার প্ল্যাটফর্ম তৈরি হয়েছে যেখানে ফ্রিল্যান্সারদেরকে অনেক সুযোগ-সুবিধা প্রদান করা হয়ে থাকে।

আপনাকে একটি প্লাটফর্মে হাজার ধরনের কাজের সন্ধান করার প্রয়োজন নেই। কারণ কাজের ধরনের উপর ভিত্তি করে অনেক ওয়েবসাইট গড়ে উঠেছে। আপনার মধ্যে যে কাজের দক্ষতা আছে সেই কাজ অনুযায়ী সে ধরনের ওয়েবসাইটে গিয়ে কাজ করতে পারবেন।

ফ্রিল্যান্সিং পেশা কেন এত জনপ্রিয়

ইউরোপ বা আমেরিকার মতো উন্নত দেশগুলোতে স্থানীয় পর্যায়ের বিভিন্ন কাজ সম্পন্ন করতে অনেক টাকা খরচ করতে হয়। আর এই কারণে এসব দেশের কোম্পানিগুলো তাদের বেতনভুক্ত কর্মচারীদের পরিবর্তে বাইরের দেশ থেকে কম খরচে কাজগুলো করে নিতে আগ্রহী হয়ে থাকে।

ঘরে বসে কাজ করার সুবিধা থাকার কারণে ফ্রিল্যান্সিং পেশা সাথে অনেকেই যুক্ত হচ্ছেন। আবার আপনাকে অফিসের মতো কোনো নির্দিষ্ট সময়ে কাজ করতে হয় না এবং কারো অধীনে কাজ করতে হয় না এখানে আপনি নিজেই বস।

ফ্রিল্যান্সিং ওয়েবসাইট গুলো যাদের জন্য

ওয়েব সাইটগুলোতে কাজ এবং দক্ষতার উপর ভিত্তি করে বিভিন্ন ক্যাটাগরি রয়েছে। সব দক্ষতার মানুষই এই ওয়েবসাইটগুলোতে ভিন্ন ভিন্ন কাজের প্রস্তাব করে থাকে। আপনি কোন কাজটি করবেন সেটা সম্পূর্ণ আপনার উপরই নির্ভর করে।

তাছাড়া এমন কিছু ওয়েব সাইট আছে যেখানে নির্দিষ্ট দক্ষতার মানুষদের জন্যই আদর্শ হিসেবে বিবেচিত। যেমন “৯৯ ডিজাইন” এই ওয়েবসাইটে শুধু লোগো ডিজাইন এবং ওয়েব ডিজাইন পারদর্শী ব্যক্তিদের জন্য।

চলুন জেনে নেই ফ্রিল্যান্সিং ওয়েবসাইট গুলোর মধ্যে কোনটিতে কি ধরনের কাজ এবং সুবিধা রয়েছে।

আপওয়ার্ক (Upwork)

২০০৩ সালে এই ওয়েবসাইটটি প্রতিষ্ঠিত হয়েছিল। আপওয়ার্ক সকল ধরনের ফ্রিল্যান্সারদের কাছে একটি জনপ্রিয় ওয়েবসাইট। আবার অনেকে তো এটাই মনে করে ফ্রিল্যান্সিং করার মানে হচ্ছে আপওয়ার্কে কাজ করা। লং টাইম প্রজেক্টর, শর্ট টাইম প্রজেক্ট, ঘন্টা চুক্তি ভিত্তিক প্রজেক্ট এবং এন্ট্রি লেভেলের কাজের ব্যবস্থা রয়েছে এখানে। আপওয়ার্কে ৩৫০০ এর বেশি রেজিস্টার্ড কাজের ক্যাটাগরি রয়েছে। আপনি যে ধরনের কাজ জানেন না কেন আপওয়ার্কে আপনি সেই কাজ পাবেন।

ফাইভার (Fiverr)

এই অনলাইন মার্কেটপ্লেসে ২০১০ সালে ইসরাইলের একটি কোম্পানি প্রতিষ্ঠা করেন। ফ্রিল্যান্সারদের জন্য ফাইবার অন্যতম একটি পছন্দের অনলাইন মার্কেটপ্লেস। ফাইবারের মাধ্যমে আপনি বিভিন্ন ধরনের কাজ করে টাকা আয় করতে পারবেন অনায়াসে। এখানে হাজার হাজার ধরনের কাজ আছে তাই আপনার কাজের অভাব হবেনা। এখানে আপনি আপনার জ্ঞান, অভিজ্ঞতা এবং দক্ষতার মাধ্যমে অনলাইনে কাজ খুঁজে পেতে পাবেন। তাছাড়া এখানে আপনি কাজ অন্যদিকে দিয়ে করাতে পারবেন।

ফ্রিল্যান্সার  (Freelancer)

অন্যান্য অনলাইন প্লাটফর্মের মতো এই ওয়েবসাইটটিতে হাজারের বেশি কাজ রয়েছে। আপনার অভিজ্ঞতা বা দক্ষতাকে কাজে লাগিয়ে অন্যান্য ফ্রিল্যান্সারদের সাথে প্রতিযোগিতার মাধ্যমে কাজ করে নিতে পারবেন। আপনি যদি ভালো কাজ পারেন এবং নির্ধারিত সময়ে কাজ করে দিতে পারেন তাহলে পোর্টফোলিওর মাধ্যমে খুব সহজে ক্লায়েন্টের দৃষ্টি আকর্ষণ করতে পারবেন। আপনি জানলে অবাক হবেন যে, আপওয়ার্ক থেকে ফ্রিল্যান্সারের কাজের পরিমাণ এবং পারিশ্রমিক বেশি।

এসইওক্লার্কস (SEOClerks)

এটি অনলাইনের বৃহত্তম SEO মার্কেটপ্লেস গুলির মধ্যে একটি। এখানে আপনি ইচ্ছা মতো আপনার কাজ পোস্ট করতে পারবেন এবং আপনার ওয়েবসাইট রেঙ্ক করার জন্য একজন এসইও বিশেষজ্ঞ নিয়োগ করতে পারবেন। আপনি যদি ডিজিটাল মার্কেটিং এ পারদর্শী হন তাহলে এই মার্কেটপ্লেসটি আপনার জন্য বেস্ট হবে। এখানে আর্ট ও ডিজাইন, কনটেন্ট ও রাইটিং, প্রোগ্রামিং সহ বিভিন্ন ধরনের কাজ করতে পারবেন।

পিপল পার আওয়ার (PeoplePerHour)

এটি যুক্তরাষ্ট্র ভিত্তিক প্ল্যাটফর্ম যেটা প্রতিষ্ঠিত হয়েছিল ২০০৭ সালে। বর্তমান সময়ে এটি অন্যতম একটি জনপ্রিয় ফ্রিল্যান্স মার্কেটপ্লেস। টেকনোলজি ও প্রোগ্রামিং, রাইটিং ও ট্রান্সলেশন, ডিজাইন, ডিজিটাল মার্কেটিং, ভিডিও-ফটো-ইমেজ, মার্কেটিং-ব্রান্ডিং-সেলস ইত্যাদি কাজ রয়েছে।

বিডিপপুলারে আপনাকে স্বাগতম!

আপনার লেখা বিডিপপুলারে পাবলিশ করবেন কিভাবে?

Leave a Comment