পৃথিবীর সবচেয়ে দামি পাঁচটি পাখি – বিস্তারিত

সমগ্র পৃথিবীতে শত শত প্রজাতির রঙ বেরঙ্গের পাখি রয়েছে। এদের মধ্যে কিছু পাখি রয়েছে যাদের দাম এতোটাই বেশি যা জানলে আপনার মাথা হয়তো ঘুরে যাবে। আজকে আপনি জানবেন সমগ্র পৃথিবীতে সবচেয়ে দামী পাচটি পাখির দাম।

৫ঃ ফ্লেমিংগো (Flamingo)

অনেকটা বকের মতো দেখতে লম্বা গলার, এই পাখিটার নাম ফ্লেমিংগো।

আপনি যদি এদের কিনতে চান তাহলে আপনাকে গুনতে হবে ১,০০০ ডলার যা বাংলাদেশি টাকায় প্রায় ৮৫ হাজার টাকা আর ইন্ডিয়ান রুপিতে ৭৫ হাজার রুপি।

লাল-সাদা এবং গোলাপী রঙের মিশ্রিত এই ফ্লেমিংগো পাখিটিকে আমেরিকা, এশিয়া ও ইউরোপের বিভিন্ন দেশে বসবাস করতে দেখা যায়।
এরা অগভীর পানিতে ছোট ছোট মাছ ও পোকা-মাকড় খেয়ে বসবাস করে।
একটি পাখি ওজনে সাড়ে ৩ থেকে ৪ কেজি পর্যন্ত হয়।

তাছাড়া বড় চিড়িয়াখানা গুলোতে এ পাখিগুলোকে সচরাচর দেখতে পাওয়া যায়। আপনি যদি এদের পালন করতে চান তাহলে ছোট-খাটো একটা চিড়িয়াখানা তৈরি করে এদের পুশতে পারেন।

Flamingo Bird

৪ঃ স্কারলেট ম্যাকাও (Scarlet Macaw)

আপনি যদি এদের কিনতে চান তাহলে আপনাকে গুনতে হবে ২,০০০ থেকে ৪,০০০ ডলার যা বাংলাদেশি টাকায় প্রায় ১ লাখ ৮০ হাজার থেকে ৩ লাখ ৮০ হাজার টাকায়।

ম্যাকাও প্রজাতির সবথেকে সুন্দর এবং আকর্ষনিয় পাখি হচ্ছে স্কারলেট ম্যাকাও। এদের পালকগুলো টকটকে লাল বর্ণের হয় এবং সাথে হলুদ ও নীল রঙের মিশ্রন লক্ষ্য করা যায়। পাখিটি এতই সুন্দর যে কেউ দেখে এর ফ্যান হয়ে যাবে।

স্কারলেট ম্যাকাও অ্যাডাল্ট অবস্থায় দৈর্ঘে প্রায় ৩৫ ইঞ্চি পর্যন্ত লম্বা হয়। পাখিগুলোর গড় ওজন ৯০০ গ্রাম থেকে দের কেজির মধ্যে হয়। তাছাড়া সঠিক যত্ন পেলে এরা ৬০ থেকে ৮০ বছর পর্যন্ত বেচে থাকতে পারে। অর্থাৎ আপনি যদি এদের ক্রয় করেন তাহলে এরা সারাজীবন আপনার সাথে থাকবে।

Scarlet Macaw Bird

৩ঃ আয়াম সিমানি চিকেন (Ayam Cemani chicken)

এই মুরগির দাম বাংলাদেশি টাকায় প্রায় ২ লক্ষ টাকা এবং ইন্ডিয়ান রুপিতে ১ লক্ষ ৮৫ হাজার রুপির মতো। দাম শুনে নিশ্চয়ই অবাক হচ্ছেন কারন একটা মুরগির দাম কিভাবে আড়াই লাখ থেকে ৩ লাখ হতে পারে।

ইন্দোনেশিয়া থেকে উৎপত্তি আয়াম সিমানি জাতের মুরগিটি। আর এই জাতের মুরগিগুলো হচ্ছে মুরগির অস্বাভাবিক একটা জাত, এদের দেহে ডমিনেট জিন রয়েছে। যার ফলে এই মুরগির মাংস হয় কুচকুচে কালো। তাছাড়া এদের বডিতে মাথার টুকুর, পালক, মাংস, হাড় এমনকি চামড়াসহ সবকিছু কালো হয়ে থাকে।

বিভিন্ন মোরগ লরাইয়ের প্রতিযোগিতায় এই মুরগিগুলোকে ব্যবহার করা হয়। কারণ এদের স্টামিনা অন্যান্য যেকোন মুরগির চেয়ে অনেক বেশি। তাছাড়া বিভিন্ন বড় বড় রোগের চিকিৎসায় ও আয়ুর্বেদি চিকিৎসায় এই মুরগির ব্যাপক ব্যবহার রয়েছে। যার ফলে এদের দাম এতটাই বেশি।

প্রত্যেকটি মুরগি প্রাপ্তবয়স্ক অবস্থায় আড়াই থেকে সাড়ে ৩ কেজি মতো ওজনের হয়।

Ayam Cemani chicken

২ঃ হায়াসিন্থ ম্যাকাও (Hyacinth Macaw)

প্রতিজোড়া হায়াসিন্থ ম্যাকাও পাখির দাম ২০ লক্ষ থেকে ৬০ লক্ষ পর্যন্ত হয়ে থাকে।

পৃথিবীর সবচেয়ে দামী পাখির লিস্টে থাকা দ্বতীয় নাম্বারে রয়েছে হায়াসিন্থ ম্যাকাও। এ জাতের ম্যাকাও পাখিগুলো অন্যসব ম্যাকাও পাখির থেকে পুরোপুরি আলাদা। পাখিগুলোর ফুল বডি কালার নীল রঙের পালকে মুড়ানো থাকে। তবে চোখের চারদিকে হলুদ রঙের বৃত্ত দেখতে পাওয়া যায়। 

এই পাখিটি হচ্ছে ম্যাকাও প্রজাতির বা তোতা প্রজাতির সবথেকে বড় পাখি। পাখিগুলো লম্বায় হয় ৪০ থেকে ৪২ ইঞ্চি পর্যন্ত অর্থৎ পুরো ৩ ফুট থেকে সাড়ে ৩ ফুট। একেকটি পাখির ওজন হয় সাড়ে ৩ থেকে ৪ কেজির মতো। তবে এরা অত্যন্ত রেয়ার ও আকর্ষনীয় কালারের হওয়ায় এদের দামটা সত্যি অস্বাভাবিক। আর এটি সমগ্র পৃথিবীর সবথেকে দামী পাখির লিস্টে ২য় অবস্থানে রয়েছে।

Hyacinth Macaw

১ঃ প্লাম কোকাতো (Palm Cockatoo)

এই পাখিগুলোর দাম ১৬ হাজার থেকে ৬০ হাজার ডলার পর্যন্ত হতে পারে। যা বাংলাদেশি টাকায় প্রায় ১২ লাখ থেকে ৫০ লাখ টাকা

কুচকুচে কালো বডি কালার, বিশাল ঠোট ও লাল চোয়ালওয়ালা এই কাকাতোয়া পাখিটি হচ্ছে পৃথিবীর সবথেকে বড় ও দামি কাকাতোয়া। আসলে এই জাতের কাকাতোয়া পাখিগুলো এডাল্ট হয় ৪১ বছর বয়সে এবং প্রতি ২-৩ বছর পর পর এরা মাত্র একটি করে ডিম দেয়।

যার ফলে সমগ্র পৃথিবীতে এই জাতের পাখিগুলোর সংখ্যা খুবই কম। অত্যন্ত বিরল জাতের হওয়ায় এদের দেখা মেলা সত্যি কঠিন। প্রতিটি কাকাতোয়া আকৃতিগতভাবে ১৮ ইঞ্চি থেকে ২৪ ইঞ্চির মধ্যে হয়ে থাকে।

Palm Cockatoo

পৃথিবীর সবচেয়ে দামী এই ৫টি পাখির মধ্যে আপনার কাছে কোনটি সবথেকে বেশি আকর্ষনীয় লেগেছে অবশ্যই কমেন্টে জানাতে ভুলবেন না। 

বিডিপপুলারে আপনাকে স্বাগতম!

আপনার লেখা বিডিপপুলারে পাবলিশ করবেন কিভাবে?