টেলিটকের পর গ্রামীণফোন চালু করলো ৫জি

বর্তমান বিশ্বে অনেক দেশে ৫জি নেটওয়ার্ক চালু রয়েছে। আমদের দেশ বাংলাদেশেও টেলিটক প্রথম ৫জি নেটওয়ার্ক চালু করে। ২০২১ সালের ডিসেম্বর মাসে পরীক্ষামূলকভাবে টেলিটক তাদের ৫জি নেটওয়ার্ক চালু করে। এবার দেশের দ্বিতীয় মোবাইল অপারেটর হিসেবে গ্রামীনফোন পরীক্ষামূলকভাবে তাদের ৫জি সেবা চালু করলো।

তবে বর্তমানে এই সেবাটি সকলের জন্য এখনো উন্মুক্ত করেনি গ্রামীণফোন। ২৬ জুলাই (মঙ্গলবার), ঢাকা ও চট্টগ্রাম বিভাগের কিছু নির্দিষ্ট জায়গায় ৫জি সেবা চালু করে গ্রামীণফোন। তবে গ্রামীণফোন জানায়, আপাতত অনেকটা ট্রায়ালের মতো তাদের এই ৫জি সুবিধা। কারণ তারা সবেমাত্র পরীক্ষা-নিরীক্ষা শুরু করেছে এবং তা শেষ হলে সকলের জন্য তা ধীরে ধীরে উন্মুক্ত করতে দেওয়া হবে।

তবে যেসকল যায়গায় ৫জি চালু করা হয়েছে, সেসকল স্থানে ৫জি সাপোর্টেড ব্যবহার করে এই সুবিধা নিতে পারবেন গ্রামীণফোনের গ্রাহকরা। তবে তাদের এই ৫জি কাজ করতে হলে ডিভাইস প্যাচের প্রয়োজন পড়বে, যা একটি অটোমেটেড প্রক্রিয়া। 

৫জি সেবা চালু করার লক্ষ্যে ২০২২ সালের মার্চ মাসে ৫জি তরঙ্গ নিলামে তোলা হয়। ১০ হাজার ৬০১ কোটি টাকায় যা দেশের অপারেটরগুলো কিনে নেয়। গ্রামীনফোন ও রবি ছিলো এই তরঙ্গ কেনার শীর্ষ তালিকায়। তবে তরঙ্গ নিলাম ও কেনার অনেক আগেই ৫জি নেটওয়ার্কের জন্য অবকাট্যহামো নির্মান শুরু করে দেশীয় অপারেটরগুলো।

বলা হচ্ছে, বর্তমানের ৪জি ইন্টারনেটের তুলনায় কমপক্ষে ১০ গুন অধিক হবে ৫জি ইন্টারনেট গতি। তবে সেই ইন্টারনেটের স্পিড নির্ভর করবে ডিভাইস, নেটওয়ার্ক ও স্থানভেদে।

বিডিপপুলারে আপনাকে স্বাগতম!

আপনার লেখা বিডিপপুলারে পাবলিশ করবেন কিভাবে?