বিটকয়েন বাংলাদেশে বৈধ নাকি অবৈধ

বিটকয়েন নামটির সাথে অনেকেই হয়তো পরিচিত আবার অনেকেই প্রথম নামটি শুনেছেন। নামটির সাথে পরিচিত অপরিচিত অনেকেই জানেন না বিটকয়েন কি। তাই এই পোষ্টে জেনে নিন বিটকয়েন সম্পর্কে।

বিটকয়েন কি

বিটকয়েন হচ্ছে ডিজিটাল মুদ্রা। পৃথিবীতে সব দেশের ই নিজস্ব মুদ্রা থাকে। যেগুলো কাগজের তৈরী এবং বহন যোগ্য। তেমনি ইন্টারনেট জগৎ এর মুদ্রা হচ্ছে বিটকয়েন। এটিকে ক্রিপ্টোকারেন্সিও বলা হয়। বিটকয়েন লেনদেন শুধুমাত্র অনলাইনেই সম্ভব এবং এটি কোন দেশ বা সরকারের নিয়ন্ত্রনে নয়।

বৈধ কোন নিয়ন্ত্রন প্রক্রিয়া না থাকায় অনেক দেশেই ক্রিপ্টোকারেন্সি তথা বিটকয়েন কে অবৈধ ঘোষনা করেছে। যদিও বর্তমান সময়ে এসে বিটকয়েনের চাহিদা বেপক হারে বেড়েছে এবং অনলাইন লেনদেনে এটি বেশ পরিচিত হয়ে উঠেছে।

সামনের দিন গুলোতে বিটকয়েন বিশ্বব্যাপি একমাত্র কারেন্সি হওয়া আশংকাও করছেন বিশেষজ্ঞরা। এমন অবস্থায় বাংলাদেশে ২০২২ সালে এসেও বিটকয়েন বৈধ নাকি অবৈধ জানতে চান অনেকেই।

বাংলাদেশে বিটকয়েন বৈধ নাকি অবৈধ জেনে নিন

অনেক দেশই বিটকয়েন কে বৈধতা দিয়েছে। একারণে অনেকের মনে প্রশ্ন জাগতে পারে বিটকয়েন বাংলাদেশে বৈধ নাকি অবৈধ? এটি জানার আগে প্রথমে জেনে নিন কোন কোন দেশে বিটকয়েন বৈধ।

বিটকয়েন বৈধ যেসব দেশে

মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র, কানাডা, অস্ট্রেলিয়া এবং ইউরোপের দেশগুলোতে বিটকয়েন বৈধ।

যেহেতু বৈধ লিস্টে বাংলাদেশ তথা এশিয়ার কোন দেশের নাম নেই সেহেতু বলা যায় বাংলাদেশে বিটকয়েন অবৈধ। বাংলাদেশ সরকার এখনো পর্যন্ত বিটকয়েনের বৈধতা দেয়নি। বাংলাদেশে বিটকয়েন ব্যবহার বা বিটকয়েনের মাধ্যমে অর্থ লেনদেন সম্পূর্ণ বেয়াইনি এবং বিটকয়েন ব্যবহারে পরতে হবে আইনি জটিলতা সহ হতে পারে বিভিন্ন আইনে দন্ড ও সাঁজা।

বিডিপপুলারে আপনাকে স্বাগতম!

আপনার লেখা বিডিপপুলারে পাবলিশ করবেন কিভাবে?