পুরুষের দাড়ি গজানোর সমাধান

men beared problem

বর্তমান সময়ে তরুণ প্রজন্মের কাছে দাড়ি একটা ফ্যাশন হয়ে উঠেছে। দাড়ির প্রতি সকলের অন্যরকম একটি আকর্ষণ থাকে। কিন্তু জৈবিক কিংবা বংশগত কারণে অনেকেরই কাঙ্খিত দাড়ি হয়ে ওঠে না।

কিছু নিয়ম মেনে চললে আপনার মুখ ভর্তি দাড়ি গজাবে। বাজারে এখন অনেক রকমের তেল কিংবা প্রসাধনী পাওয়া যায় সেগুলো ব্যবহার করলে মুখে দ্রুত দাড়ি গজায় কিন্তু এগুলো ব্যায়বহুল হওয়ায় অনেকেই আগ্রহ হারিয়ে ফেলেন।

তাছাড়া এগুলোর আছে পার্শপ্রতিক্রিয়া যা ত্বকের জন্য ক্ষতিকর। এমন কিছু প্রাকৃতিক উপায় যেগুলো মেনে চললে আপনার মুখ দাঁড়ি-গোফে ভরে যাবে।

দাড়ি গজানোর সমাধান নিয়ে নিন

বারবার দাড়ি কাটলে বা সেভ করলে দাড়ি ঘন হয় এ ধারণাটি সঠিক নয়। আপনি ০৪ থেকে ০৬ সপ্তাহ পর পর সেভ করতে পারেন।

পেঁয়াজের রস রয়েছে অনেক উপকারী সালফার। যা মাথার চুল এবং মুখের দাড়ির জন্য অনেক উপকারী। পেঁয়াজের রস মুখে ঘষলে বা দাড়ির গোড়ায় লাগালে দাড়ি দ্রুত বৃদ্ধি পায়।

মুখের ত্বক সব সময় পরিষ্কার রাখতে হবে এবং হালকা কুসুম গরম পানি দিয়ে মুখ দিনে অন্তত দুই থেকে তিনবার ধুতে হবে। মুখ পরিষ্কার থাকলে নতুন দাড়ি গজাতে সুবিধা হয়।

যাদের দাড়ি কোঁকড়ানো এবং এলোমেলো অবস্থায় থাকে সেগুলো কেটে ফেলুন। কোঁকড়ানো কিংবা এলোমেলো দাড়ি দাড়ির বৃদ্ধিতে বাঁধা দেয়।

দাড়ির যত্নে ভিটামিন বি অনেক উপকারী। ভিটামিন বি দাড়ি দ্রুত বাড়াতে এবং গজাতে সাহায্য করে। এক্ষেত্রে ডাক্তারের পরামর্শ নিয়ে ভিটামিন বি খেতে পারেন।

প্রতিদিন অন্তত দশ মিনিট করে মুখে আলতো করে মালিশ করতে হবে। এর ফলে মুখ মন্ডলে রক্ত সঞ্চালন বাড়বে এবং দাড়ি দ্রুত বৃদ্ধি পাবে।

সপ্তাহে অন্তত একবার মুখে স্ক্রাব ফেসিয়াল ব্যবহার করুন। এর ফলে মুখের মৃত কোষগুলো সজীব হবে এবং মুখে রক্ত সঞ্চালন বৃদ্ধি পাবে। ফলে নতুন নতুন দাড়ি গজাতে সাহায্য করবে।

বিডিপপুলারে আপনাকে স্বাগতম!

আপনার লেখা বিডিপপুলারে পাবলিশ করবেন কিভাবে?