রদ্রিগোর রিলিজ ক্লজ ১০০ কোটি ইউরো

রিয়াল মাদ্রিদ তারকা রদ্রিগোর রিলিজ ক্লজ ১০০ কোটি ইউরো

রিয়াল মাদ্রিদের সাথে রদ্রিগোর চুক্তির মেয়াদ বাড়ানোর খবর প্রকাশিত হয় স্প্যানিশ গণমাধ্যম মার্কায়। আর এই খবর প্রকাশিত হওয়ার পর টুইটারে তা নিয়ে রসিকতা চলছে, রদ্রিগোর রিলিজ ক্লজ শেখ বিদ্বেষী। রদ্রিগোর রিলিজ ক্লজ ধরা হয়েছে ১০০ কোটি ইউরো। বাংলাদেশের টাকা যা প্রায় ৯৭৬৬ কোটি টাকা।

অর্থাৎ মধ্যপ্রাচ্যের ধনকুবের সেখরা যেন রদ্রিগোকে রিয়াল মাদ্রিদ থেকে নিয়ে যেতে না পারে সে জন্য এই ব্যবস্থা। স্প্যানিশ গণমাধ্যম মার্কা জানায় রিয়ালের সাথে রদ্রিগো ২০২৮ সাল পর্যন্ত নতুন চুক্তি করতে সম্মত হয়েছে। ব্রাজিলিয়ান উইঙ্গার রদ্রিগোকে ২০১৯ সালে সান্তোস থেকে রিয়াল মাদ্রিদে আনা হয়। তখন তার সাথে ২০২৫ সাল পর্যন্ত চুক্তি করেছিল রিয়াল মাদ্রিদ। 

২০২১-২২ মৌসুমী রিয়াল মাদ্রিদের হয়ে দুর্দান্ত খেলেন রদ্রিগো। চ্যাম্পিয়ন্স লিগে গুরুত্বপূর্ণ মুহূর্তে গোল করে রিয়াল মাদ্রিদের জয়ের নায়ক হন এই তারকা। কোয়ার্টার ফাইনালে চেলসি এবং সেমিফাইনালে ম্যানচেস্টার সিটির বিপক্ষে শেষ মুহূর্তে গোল করে দলকে জিতিয়ে মাঠ ছাড়েন এই তারকা। রিয়াল মাদ্রিদের কোচ অ্যানচেলোত্তির ট্রাম্পকার্ড ছিলেন রদ্রিগো। 

রদ্রিগোর বয়স কম এবং ভালো ফুটবল খেলছেন তাই স্বাভাবিকভাবেই রিয়াল মাদ্রিদ তাকে যত বেশি দিন সম্ভব ধরে রাখতে চাইবে। আগামী সপ্তাহেই কাগজপত্র চূড়ান্ত হবে এই নতুন চুক্তি, জানিয়েছে মার্কা। 

নিজেদের দলের তারকাদের ধরে রাখতে অবিশ্বাস্য বড় অংকের রিলিজ ক্লজ বেঁধে দেওয়া রিয়াল মাদ্রিদ এর জন্য নতুন কিছু নয়। মূলত রিলিজ ক্লজ হচ্ছে একজন খেলোয়ারকে তার ক্লাবে থরে রাখার জন্য একটি শর্ত। ক্লাবের অনিচ্ছায় যদি কোন খেলোয়ারকে অন্য কোন ক্লাব কিনতে চায় তাহলে রিলিজ ক্লজ পরিশোধ করতে হয়। এটাকে এক প্রকার মুক্তিপণ বলা চলে।

রদ্রিগোকে কিনতে আগ্রহ প্রকাশ করেছে ইংলিশ প্রিমিয়ার লিগের কয়েকটি ক্লাব। নিউক্যাসল ইউনাইটেড, ম্যানচেস্টার সিটি এই ক্লাবগুলোর মালিক মধ্যপ্রাচ্যের দুই ধনকুব। এখন দেখার বিষয় এত বড় অংকের রিলিজ ক্লজ শোধ করে রদ্রিগোকে কেউ কেনার দুঃসাহস দেখায় কিনা।

বিডিপপুলারে আপনাকে স্বাগতম!

আপনার লেখা বিডিপপুলারে পাবলিশ করবেন কিভাবে?