সমুদ্র সফরে বাংলাদেশ ক্রিকেটারদের নাজেহাল অবস্থা

ক্যারিবীয় দ্বীপপুঞ্জের মনোরম সৌন্দর্য উপভোগ করার জন্য পৃথিবীর বিভিন্ন প্রান্ত থেকে শত শত পর্যটক ভ্রমণ করতে আসেন। ডোমিনিকান প্রজাতন্ত্রকে দ্বীপপুঞ্জের মধ্যে সুন্দরের আধার বলা হয়। এর চারদিকে ঘিরে আছে আটলান্টিক মহাসাগর। আর এই ডোমিনিকায় ২ ও ৩ জুলাই দুটি টি-টোয়েন্টি ম্যাচ খেলবে বাংলাদেশ।

বাংলাদেশ দল সেন্ট লুসিয়া থেকে ক্রুজ ভ্রমণে ডোমিনিকায় যান। আর ভ্রমণ যাত্রায় সাড়ে পাঁচ ঘণ্টা সময় লাগে। বাংলাদেশের বেশিরভাগ খেলোয়াড়দের জন্য এই ভ্রমণটি ছিল দুঃস্বপ্ন, বিভীষিকাময় ও ভয়ংকর। ক্রিকেটাররা বমি করতে করতে ডোমিনিকায় পৌঁছান। নাসুম, সোহান, মুস্তাফিজ, শরিফুলরা ভয়াবহ পরিস্থিতির মুখোমুখি হয়।

আর এসবের পর টি-টোয়েন্টি খেলার জন্য মানসিকভাবে কতটা প্রস্তুত বাংলাদেশ দল? ক্রিকেটারদের নিরাপত্তাহীন ভ্রমণের জন্য চরমভাবে সমালোচিত হচ্ছে বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ড।

বিসিবির কর্মকর্তা নিজামউদ্দিন চৌধুরী বিষয়টি নিয়ে বলেন, যখন কোন দল অন্য দেশে খেলতে যায় তখন স্বাগতিক দেশ সেই দলকে সব ধরনের সুযোগ-সুবিধা দেয়। ওয়েস্ট ইন্ডিজ ক্রিকেট বোর্ড নাকি বিসিবিকে আগেই জানিয়েছিল ক্রুজ ভ্রমণের সেন্ট লুসিয়া থেকে ডোমিনিকা যাওয়ার বিষয়টি। তবে শুধু বাংলাদেশ নয় ক্রুজ ভ্রমণে যাওয়ার কথা ছিল ওয়েস্ট ইন্ডিজ, দল ম্যাচ রেফারি ও আম্পায়ারদেরও।

এখন কথা হলো বাংলাদেশের ক্রিকেটারদের সমুদ্র ভ্রমণের অভিজ্ঞতা না থাকা সত্ত্বেও, উইন্ডোজের ক্রিকেট বোর্ড থেকে বিসিবিকে দেওয়া ক্রুজ ভ্রমণে যাওয়ার প্রস্তাব কেন মেনে নিয়েছে?

বাংলাদেশ দলের দুদিন আগেই সেন্ট লুসিয়া থেকে ডোমিনিকা যাওয়ার কথা ছিল। কিন্তু সাইক্লোনের জন্য বৃহস্পতিবার সকাল ৭ টায় সেন্ট লুসিয়ার ক্যাস্ট্রিস ফেরি টার্মিনাল থেকে কলোনি মার্টিনের উদ্দেশ্যে রওনা দেয় বাংলাদেশ দল। পার্লে এক্সপ্রেস ফেরি দিয়ে সমুদ্র পাড়ি দেন বাংলাদেশ ক্রিকেটাররা। এর জন্য ক্রিকেটাররা ভীত এবং এক্সাইটেড দুটোই ছিল।

শুরুর দিকে তারা আটলান্টিকের সৌন্দর্য উপভোগ করেন, ছবি তোলেন, গল্প করেন। কিন্তু ডলফিন চ্যানেল পাড়ির সময় ঢেউয়ের ধাক্কায় ফেরি যখন টালমাটাল তখন ক্রিকেটাররা ভীত হয়ে পড়েন। কয়েকজন ক্রিকেটার স্বাভাবিক ছিলেন বাকি সবাই অসুস্থ হয়ে পড়েছিলেন।

বিমানে করে যাওয়ার সুযোগ থাকার পরও ক্রিকেটাররা কেন ফিরিতে গেলেন এ নিয়ে বিসিবির সিইও ব্যাখ্যা দেন। তিনি বলেন বিমানের ফ্লাইট যে এই বিষয়টি এমন নয়। আমরা যোগাযোগ করেছি ওয়েস্ট ইন্ডিজ ক্রিকেট বোর্ডের সাথে তারা জানিয়েছে পূর্বে যেসব বিমান চলাচল করত করোনার জন্য সে সব বন্ধ হয়ে গেছে।

আর যেগুলো চলাচল করছে সেগুলো আকারে ছোট। একসাথে সব ক্রিকেটারের যেতে পারবেন না, বাঘ ভাগ ভাগ হয়ে যেতে হবে বলে ব্যবস্থা করেননি। 

বিডিপপুলারে আপনাকে স্বাগতম!

আপনার লেখা বিডিপপুলারে পাবলিশ করবেন কিভাবে?