পরিবেশবান্ধব সোলার গাড়ি তৈরির চ্যালেঞ্জ

ভারতের একজন অংক শিক্ষক পরিবেশবান্ধব একটি গাড়ি তৈরি করেছেন যা সূর্যের আলোতে চলবে।

দিনকে দিন পেট্রোল এবং ডিজেলের দাম অত্যধিক হারে বাড়ছে এবং অনেকে কিনতে হিমশিম খাচ্ছে। তাছাড়া যেহেতু পেট্রোল এবং ডিজেলের নবায়নযোগ্য নয়, একটি নির্দিষ্ট পরিমাণে পৃথিবীতে রয়েছে। তাই বলা যায়না যে, কবে এই প্রাকৃতিক সম্পদ আমাদের শেষ হয়ে যায়।

তাই এখন যে বিষয়টি সবচেয়ে ভাববার তা হল নবায়নযোগ্য শক্তির উৎস খুঁজে বের করা। এবং এ শক্তি কাজে লাগিয়ে আমাদের দৈনন্দিন সকল কাজকর্মের প্রয়োজন মেটানো।

এখনো পর্যন্ত ইলেকট্রিক গাড়ি তৈরি হচ্ছে যা পরিবেশবান্ধব। এবং পরিবেশ দূষণের পরিমাণ অনেক পরিমাণে কমে আসছে এই ইলেকট্রিক গাড়ি ব্যবহারের ফলে। বলা যায় ভবিষ্যতে ইলেকট্রিক গাড়ি ব্যবহার আরো অনেক পরিমাণে বেড়ে যাবে।

এ ধরনের গাড়িতে একটা নির্দিষ্ট পরিমাণ চার্জরত অবস্থায় আপনি নির্দিষ্ট পরিমান দূরত্ব অতিক্রম করতে পারবেন। এবং আপনাকে আবার চার্জ দিয়ে পরে দূরত্ব অতিক্রম করতে হবে।

কেমন হয় যদি দিনের বেলায় আমাদের গাড়িটি সূর্যের আলোতে চলে?

আবার কেমন হয় যদি প্রায় মেঘাচ্ছন্ন আকাশ এবং মৃদু সূর্যের আলোয় আপনার গাড়িটি চালানো যায়?

ভারতের বিলাল আহমেদ প্রায় ১১ বছর ধরে অক্লান্ত পরিশ্রম করে এধরনের একটি গাড়ি তৈরি করেছেন যা মেঘাচ্ছন্ন আকাশ থাকা সত্ত্বেও চালানো সম্ভব।

গাড়িটি সম্পন্ন সোলার প্যানেলের ব্যবহার করে চলে এবং সোলার প্যানেল থেকেই বিদ্যুৎ নিয়ে সম্পূর্ণ গাড়িটিকে পাওয়ার দেওয়া হয়। গাড়িটিকে মোটামুটি বিলাসবহুল করা হয়েছে। এবং প্রায় সব জায়গাতেই সোলার প্যানেল লাগানো হয়েছে।

গাড়িটি দেখতে অনেক অসাধারণ দেখায়। যদিও সামনে-পিছনে সোলার প্যানেলের কারণে একটু অসুবিধা হতে পারে কিন্তু তারপরেও গাড়িটি অত্যাধুনিক গাড়ি থেকে কোন অংশে কম নয়।

আশা করা যায় ভবিষ্যতে এধরনের সমস্যা থাকবে না। সোলার প্যানেল গুলো পুরোপুরি স্বচ্ছ হয়ে যাবে এবং দেখতেও তেমন কোন অসুবিধা হবে না। কিন্তু গাড়ি ঠিকই সূর্যের আলো থেকে শক্তি গ্রহণ করতে পারবে।

ভারতের এই অংক শিক্ষক যে গাড়িটি তৈরি করেছেন এই গাড়ির সম্পূর্ণ একটি ভিডিও আপনাদেরকে নিচে দেওয়া হল। গাড়িটা দেখে কেমন লাগলো আমাদেরকে জানাতে ভুলবেন না।

বিডিপপুলারে আপনাকে স্বাগতম!

আপনার লেখা বিডিপপুলারে পাবলিশ করবেন কিভাবে?