জুলাইয়ে প্রকাশ হবে ৪১ তম বিসিএস লিখিত পরীক্ষার ফলাফল

৪১তম বিসিএসের লিখিত পরীক্ষার ফল জুলাইয়ে প্রকাশিত হতে পারে বলে জানিয়েছে সরকারি কর্ম কমিশনের (পিএসসির) একটি নির্ভরযোগ্য সূত্র। প্রায় ০৭ (সাত) মাস আগে অনুষ্ঠিত হয় ৪১ বিসিএস লিখিত পরীক্ষা। এই ফল প্রকাশের পর দ্রুত সময়ের মধ্যেই মৌখিক পরীক্ষার তারিখ ঘোষণা করা হবে বলে জানায় পিএসসি।

পিএসসি একটি সূত্র জানায় কিছু কিছু পরীক্ষক খাতা সঠিক সময়ে জমা দেননি। এ জন্য ৪১তম বিসিএসের ফল দিতে দেরি হচ্ছে। তারা বলেন, লিখিত পরীক্ষার খাতা দেখা কিছুটা সময়সাপেক্ষ। তবে ফল দ্রুতই দেয়ার জন্য সব ব্যবস্থা নেওয়া হয়েছে বলে জানান তারা।

পিএসসির একজন সদস্য বলেন, খাতা দেখতে দেরি হওয়ার বিষয়ে পিএসসি কঠোর অবস্থানে যাচ্ছে। সঠিক সময়ে খাতা দেখতে না পারলে ওই পরীক্ষকের খাতা নিয়ে নেওয়ার বিধান করা হচ্ছে ও ওই পরীক্ষকদের দিয়ে আর পিএসসির কোনো খাতা না দেওয়ার দিকেই জোর দেওয়া হচ্ছে। ৪১তম বিসিএসের খাতা দেখতে দেরি করায় এ ব্যবস্থার দিকে যাচ্ছে পিএসসি।

৪১তম বিসিএসের একজন পরীক্ষার্থী বলেন, ‘প্রায় সাড়ে তিন বছর আগে আমরা ৪১তম বিসিএসের আবেদন করেছিলাম। এই বিসিএসে এখনো লিখিত পরীক্ষার ফলই প্রকাশ করেনি। এরপর ভাইভা আছে। তারপর চূড়ান্ত ফল প্রকাশ আছে।

তারপরও জনপ্রশাসন থেকে নিয়োগের প্রজ্ঞাপন জারিও আছে। সব মিলে কত বছর লেগে যাবে, তা চিন্তা করতেই আমরা হতাশ হয়ে পড়ি। পিএসসির উচিত আমাদের সময় কম লাগার বিষয়ে মনোযোগ দেওয়া। না হলে এভাবে চলতেই থাকবে। আমরা এর অবসান চাই।

২০২১ সালের আগস্টের শুরুতে ৪১তম বিসিএসের প্রিলিমিনারির ফলাফল প্রকাশ করে পিএসসি। এই বিসিএসে ২১ হাজার ৫৬ জন উত্তীর্ণ হন। তাঁরাই লিখিত পরীক্ষায় অংশ নেন। ২০১৯ সালের ২৭ নভেম্বর ৪১তম বিসিএসের বিজ্ঞপ্তি প্রকাশ করে পিএসসি। তাতে আবেদন করেন চার লাখের বেশি প্রার্থী। এতে বিভিন্ন পদে ২ হাজার ১৩৫ জন কর্মকর্তা নিয়োগ দেওয়ার কথা বলা হয়।

বিজ্ঞপ্তি অনুযায়ী, সবচেয়ে বেশি নেওয়া হবে শিক্ষা ক্যাডারে। এই ক্যাডারে ৯১৫ জনকে নিয়োগ দেওয়া হবে। এর মধ্যে বিসিএস শিক্ষায় ৯০৫ জন এবং কারিগরি শিক্ষা বিভাগে ১০ জন প্রভাষক নেওয়া হবে। শিক্ষার পর বেশি নিয়োগ হবে প্রশাসন ক্যাডারে। প্রশাসনে ৩২৩ জনকে নিয়োগ দেওয়া হবে।

পুলিশে ১০০ জন, বিসিএস স্বাস্থ্যে সহকারী সার্জন ১১০ ও সহকারী ডেন্টাল সার্জন ৩০ জন নেওয়া হবে। ৪১তম বিসিএসে পররাষ্ট্রে ২৫ জন, আনসারে ২৩, অর্থ মন্ত্রণালয়ে সহকারী মহাহিসাবরক্ষক (নিরীক্ষা ও হিসাব) ২৫, সহকারী কর কমিশনার (কর) ৬০, সহকারী কমিশনার (শুল্ক ও আবগারি) ২৩ ও সহকারী নিবন্ধক হিসেবে ৮ জন নেওয়া হবে। পরিসংখ্যান ও তথ্য ব্যবস্থাপনা বিভাগে পরিসংখ্যান কর্মকর্তা ১২ জন, রেলপথ মন্ত্রণালয়ে সহকারী যন্ত্র প্রকৌশলী ৪, সহকারী ট্রাফিক সুপারিনটেনডেন্ট ১, সহকারী সরঞ্জাম নিয়ন্ত্রক ১, সহকারী প্রকৌশলী (সিভিল) ২০, সহকারী প্রকৌশলী (যান্ত্রিক) হিসেবে ৩ জনকে নেওয়া হবে।

এ ছাড়া তথ্য মন্ত্রণালয়ে সহকারী পরিচালক বা তথ্য কর্মকর্তা বা গবেষণা কর্মকর্তা ২২, সহকারী পরিচালক (অনুষ্ঠান) ১১, সহকারী বার্তা নিয়ন্ত্রক ৫, সহকারী বেতার প্রকৌশলী ৯, স্থানীয় সরকার বিভাগে বিসিএস জনস্বাস্থ্য প্রকৌশলে সহকারী প্রকৌশলী ৩৬, সহকারী বন সংরক্ষক ২০ জন। ৪১তম বিসিএসে সহকারী পোস্টমাস্টার জেনারেল পদে ২ জন, বিসিএস মৎস্যে ১৫, পশুসম্পদে ৭৬, কৃষি সম্প্রসারণ কর্মকর্তা ১৮৩, বৈজ্ঞানিক কর্মকর্তা ৬ ও বিসিএস বাণিজ্যে সহকারী নিয়ন্ত্রক ৪ জন।

পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা ৪ জন, বিসিএস খাদ্যে সহকারী খাদ্য নিয়ন্ত্রক ৬ ও সহকারী রক্ষণ প্রকৌশলী ২ জন, বিসিএস গণপূর্তে সহকারী প্রকৌশলী (সিভিল) ৩৬ ও সহকারী প্রকৌশলী (ই/এম) হিসেবে ১৫ জন কর্মকর্তাকে এই বিসিএসে নিয়োগ দেওয়া হবে।

বিডিপপুলারে আপনাকে স্বাগতম!

আপনার লেখা বিডিপপুলারে পাবলিশ করবেন কিভাবে?