বিরিয়ানি রান্না করবেন কিভাবে

আমাদের বাংলাদেশীদের জন্য বিরিয়ানি খুবই সুস্বাদু এবং জনপ্রিয় একটি খাবার। বিরিয়ানির কথা মাথায় আসলে আমাদের জিভে জল চলে আসে। 

বাংলাদেশের সব জায়গায় রেস্টুরেন্টে বিরিয়ানি পাওয়া যায়। আমরা অনেকেই রেস্টুরেন্টের মত মজা করে বিরিয়ানি রান্না করতে পারিনা। আপনাদের জন্য আজকে আমাদের টপিক বিরিয়ানি রান্না করার নিয়ম।

বিরিয়ানি সাধারণত খাসি, গরু ও মুরগির মাংস দিয়ে রান্না করা হয়। আসুন জেনে নিই বিরানী রান্না করার জন্য কি কি উপকরণ প্রয়োজন হবে

উপকরণ

মাংস ২ কেজি

পোলাওর চাল বা বাসমতি চাল ১ কেজি

আধা কাপ আদা বাটা, ৪ চা চামচ রসুন বাটা

২ চা চামচ মরিচের গুঁড়া, ২ চা চামচ সাদা গোলমরিচ গুড়া 

২ চা চামচ জয়ফল, জয়ত্রী, এলাচ ও দারুচিনি

এক কাপ টমেটো সস ও ২ কাপ টক দই

অল্প পরিমাণে জর্দার রং এবং পরিমাণমতো লবণ

৪ চা চামচ গুড়া দুধ ও কেওড়া জল

আধা চা চামচ গোলাপ জল 

১ কেজি আলু

২ চা চামচ শাহি জিরা ও চিনি

পরিমাণমতো তেজপাতা  এবং লবঙ্গ

২ কাপ পেঁয়াজ বেরেস্তা

৫ থেকে ৮ টি এলাচ ও দারচিনি

৮ থেকে ১০ আলু বোখারা

আধা কাপ ঘি

পরিমাণমতো ময়দা ময়াম

আধা চা-চামচ জাফরান

১ কাপ তেল  

কাঁচা মরিচ পরিমাণমতো

যেভাবে রান্না করবেন

প্রথমে চাল ও মাংস গুলো ভালোভাবে ধুয়ে পানি ঝরিয়ে নিন। এরপর একটি পাত্রে রসুন বাটা, আদা বাটা, পেঁয়াজ বাটা, লাল মরিচ গুঁড়া, জিরা, ধনিয়া, জায়ফল, টক দই এগুলো সব একসাথে মাখিয়ে ঢাকনা দিয়ে ঢেকে আধাঘন্টা চুলার আগুনে বসিয়ে রাখবেন। 

এরপর অন্য আরেকটি পাত্রে তেল গরম করে সেখানে পেঁয়াজের কুচি ভাজুন। যতক্ষণ পর্যন্ত পেঁয়াজ কুচি বাদামি কালারের না হবে ততক্ষণ ভাজবেন। 

ভাজার পর অর্ধেক পাতিলে রেখে আর বাকি অর্ধেক তুলে অন্য একটা পাত্রে রাখুন। এরপর ম্যারিনেট করা মাংসের সাথে গরম মসলা দিয়ে মাখিয়ে নিন। 

এরপর অল্প পানি দিয়ে নেড়েচেড়ে কষিয়ে মাঝারি আঁচে রান্না করতে হবে।

বিরিয়ানির চাল অন্য পাত্রে পরিমাণমতো পানি দিয়ে এর মধ্যে তেজপাতা, শাহী জিরা, দারুচিনি, গুড়া দুধ দিয়ে পানি ফুটিয়ে নিবেন। 

এরপর চালগুলো আধা সিদ্ধ করে নামিয়ে নিন এবং ১ মগ ফুটন্ত পানি থেকে রেখে দিন। এই ফুটন্ত পানির মধ্যে কেওড়া জল, গুড়া দুধ, ঘি, কেওড়া জল মিশিয়ে রেখে দিন। 

এখন যে পাত্রে মাংস রাখা হয়েছিল সেখানে আধা সিদ্ধ চাল গুলো ঢেলে মিশিয়ে নিন। রেখে দেয়া মগের পানিগুলো এর মধ্যে ঢেলে দিন। জাফলন, আলুবোখারা, কাঁচা মরিচ, বেরেস্তা, জর্দার রং মিশিয়ে ঢাকনা দিয়ে ঢেকে রেখে দিন। এরপর পাতিলের আর ঢাকনার মাঝখান দিয়ে যাতে কোনো খোলা না থাকে সেজন্য চারদিকে ময়দার ময়াম লাগিয়ে নিন। 

বিরিয়ানির পাতিলটি চুলার উপরে তাওয়া দিয়ে বসাবেন। প্রথম ১০ মিনিট চুলাটি একটু বেশি আঁচে জ্বালিয়ে রাখুন এরপর ৩০ থেকে ৪০ মিনিট কম আঁচে চুলা জ্বালিয়ে রাখুন। ব্যাস এরপর তৈরি হয়ে গেল মজাদার বিরিয়ানি। 

খাসির মাংস দিয়ে বিরিয়ানি রান্না করলে সেটাকে বলা হয় কাচ্চি বিরিয়ানি আর গরুর মাংস দিয়ে রান্না করলে বলা হয় তেহারি আর মুরগির মাংস রান্না করলে বলা হয় মুরগির মাংস বিরিয়ানি।

বিডিপপুলারে আপনাকে স্বাগতম!

আপনার লেখা বিডিপপুলারে পাবলিশ করবেন কিভাবে?