গর্ভবতী মায়েদের খাবার তালিকা

মা হলো এই পৃথিবীতে সব থেকে আপন মানুষ। মা সব তার বাচ্চার জন্য বট গাছের মত ছায়া হয়ে পাশে থাকে। মায়ের অফুরন্ত স্নেহ ও ভালোবাসার মাধ্যমে একজন সন্তান নিরাপদ ভাবে বেড়ে ওঠে। 

তাই সুস্থ স্বাভাবিক সন্তান জন্মদানের প্রথম শর্তই হলো গর্ভবতী মায়ের যথাযথ পরিচর্যা করা। একজন গর্ভবতী মায়ের জন্য তার গর্ভকালীন প্রথম তিন মাস খুবই ঝুঁকিপূর্ণ। এ সময় তাদের যথাসম্ভব যত্ন নিতে হয় নিজের প্রতি। কারণ এ সময় বমি বমি ভাব, খাবারে অরুচি, ওজন কমে যাওয়া রক্তশূন্যতার মত সমস্যা দেখা দিতে পারে।

গর্ভবতী মহিলার ৫ মাস থেকে ভ্রূণের যথাযথ বৃদ্ধির জন্য সুষম খাবার অনেক কার্যকরী। তাছাড়া এর পাশাপাশি আমিষ ক্যালসিয়াম ভিটামিন খনিজ পদার্থ জাতীয় খাবার খেতে হবে। সাথে বাচ্চা ও মায়ের সুরক্ষার জন্য পর্যাপ্ত পরিমাণ ঘুম ও বিশ্রাম নিতে হবে।

যুক্তরাষ্ট্রের খাদ্য ও পুষ্টি বোর্ড থেকে গর্ভবতী মহিলাদের শেষের দুই মাস প্রয়োজনীয় আমিষের সাথে অতিরিক্ত ২০ গ্রাম আমিষ গ্রহণের পরামর্শ দিয়েছেন। এর পাশাপাশি খাবারে যেন ৫০০ মিলিগ্রাম অতিরিক্ত ক্যালসিয়াম ও ৫ মিলিগ্রাম লোহা থাকে।

এই গর্ভাবস্থার সময় আয়োডিনযুক্ত খাবার যেমন সামুদ্রিক মাছ খাবার তালিকায় থাকা উচিত। কারণ আমরা জানি আয়োডিন শিশুর বুদ্ধি বা মস্তিষ্কে বৃদ্ধির জন্য জরুরী।

প্রতিদিনের  খাবার তালিকা

সকাল ৮টা থেকে ৮.৩০

৪ টি রুটি /পরোটা ২ টি

১ টি ডিম ও ২ কাপ সবজি

সকাল ১১টা থেকে ১১.৩০

২৫০ মিলিগ্রাম দুধ/বাদাম ৬০ গ্রাম

২ টি বিস্কুট/মুড়ি 

১ টি মৌসুমী ফল

দুপুরের খাবার তালিকা

ভাত ৩ কাপ পরিমাণ (মাঝারি চায়ের কাপে)

মাছ/ মাংস ২ টুকরো

সপ্তাহে ১ দিন  সামুদ্রিক

শাকসবজি, সালাদ ও লেবু, ডাল ১ কাপ

বিকাল ৫-৬ টা

২৫০ মিলিগ্রাম দুধ/ স্যুপ/৬০ গ্রাম বাদাম/মুড়ি ৩০ গ্রাম/নুডুলস ১ কাপ

রাতের খাবার তালিকা

ভাত ৪ কাপ

মাছ/মাংস অন্তত ২ টুকরো

সপ্তাহে ১ দিন সামুদ্রিক মাছ, শাকসবজি এবং ১ কাপ ডাল

গর্ভকালীন মায়েদের নিয়ে আমাদের সমাজে অনেক ভ্রান্ত ধারণা রয়েছে। যেগুলোর কারণে গর্ভবতী মহিলা বিভিন্ন সমস্যায় পড়ে থাকে। 

যেমন অনেকের ধারণা গর্ভবতী মহিলা বেশি খেলে তার সন্তান বেশি বড় হয়ে যাবে। যার ফলে তাদের বেশি খাবার খেতে দেওয়া হয় না। এর ফলে সন্তান অপুষ্টির জন্য কম ওজন নিয়ে জন্মগ্রহণ করে। 

অনেকে বলেন কলা খেলে ঠান্ডা লাগবে তাই কলা খেতে নিষেধ করেন।

আবার চন্দ্রগ্রহণের সময় গর্ভবতী মহিলাকে না খাইয়ে রাখা হয়।

এসকল জাতীয় ভ্রান্ত ধারণা গুলো আমাদের সমাজে এখনও প্রচলিত রয়েছে। যা গর্ভবতী মহিলার অপুষ্টির জন্য একটি কারণ।

বিডিপপুলারে আপনাকে স্বাগতম!

আপনার লেখা বিডিপপুলারে পাবলিশ করবেন কিভাবে?