গরুর ওজন মাপার সূত্র

যারা গরু ব্যবসায়ী তারা অনেক সময় গরু দেখে গরুর ওজন আনুমানিক বলে থাকে। যা বেশিরভাগ ক্ষেত্রে সঠিক হয় না। ঈদুল আযহায় কুরবানীর জন্য এবং বিভিন্ন অনুষ্ঠানে খাওয়ানোর জন্য গরু কিনে থাকি। 

ওই সময় আমাদের গরুর ওজন জানা জরুরী হয়ে পড়ে। কারণ গরুর ওজন এর উপরে গরুর দাম নির্ভর করে। যে গরুর ওজন যত বেশি সেই গরুর গোশত ও তত বেশি হয়। আর তাই আমাদের গরুর ওজন জানার কৌশল সম্পর্কে জেনে রাখা ভালো। আজকের পোষ্টে আপনাদের গরুর ওজন মাপার সূত্র জানিয়ে দিব।

গরুর ওজন মাপার দুটি সূত্র বা পদ্ধতি রয়েছে।

  • ডিজিটাল স্কেল বা মিটার ব্যবহার করে ওজন নির্ণয়
  • ফিতা দিয়ে মেপে ওজন নির্ণয়

ডিজিটাল স্কেল বা মিটার ব্যবহার করে ওজন নির্ণয়

ডিজিটাল স্কেল বা মিটার ব্যবহার করে সহজে গরুর ওজন মেপে নেয়া যায়।  এই পদ্ধতিতে কম সময়ে সহজে ওজন মাপা যায় এবং এর গ্রহণযোগ্যতা বেশি।  কিন্তু এত বড় ডিজিটাল স্কেল বা মিটার সব জায়গায় থাকে না যার জন্য সব সময় এই মিটার ব্যবহার করে ওজন মাপা সম্ভব হয় না।

ফিতা দিয়ে মেপে ওজন নির্ণয়

ফিতা দিয়ে মেপে গাণিতিক সূত্র প্রয়োগ করে কম সময়ে গরুর ওজন নির্ধারণ করা যায়। ফিতা পদ্ধতিতে ওজন মাপতে দরকার হবে একটি স্কেল টেপ বা মাপার ফিতা এবং ক্যালকুলেটর।

সর্বপ্রথম আপনাকে ফিতা দিয়ে গরুর লম্বা দৈর্ঘ্য বের করতে হবে। এরপর গরুর বুকের বেড় অর্থাৎ প্রস্থ কত ইঞ্চি তা নির্ণয় করতে হবে।

গরুর ওজন মাপার সূত্রঃ গরুর দৈর্ঘ্য * বুকের বেড় * বুকের বেড় / ৬৬০

মনে করেন একটি গরুর দৈর্ঘ্য ৬০ ইঞ্চি এবং প্রস্থ ৫০ ইঞ্চি। 

সুতরাং গরুর আনুমানিক ওজন = (৬০*৫০*৫০/৬৬০) = ২২৭ কেজি

এখানে গরুর নাড়ি ভুড়ি, চামড়া, লেজ, খুড়া সহ সবকিছুর ওজন। যদি গরুর মাংসের ওজন জানতে চান তাহলে এই সূত্র ব্যবহার করে যে ওজন পাবেন সে ওজনের ৫৫% থেকে ৬৫% পর্যন্ত হবে গরুর মাংসের ওজন।

এই সূত্র ব্যবহার করে ওজন নির্ণয় করলে ৯৫ থেকে ১০০ ভাগ সঠিক হয়ে থাকে। আপনি যখন গরু ক্রয় করবেন তখন এই সূত্র দিয়ে ওজন মেপে গরু কিনলে আপনি কাঙ্ক্ষিত দাম পাবেন।

বিডিপপুলারে আপনাকে স্বাগতম!

আপনার লেখা বিডিপপুলারে পাবলিশ করবেন কিভাবে?