চারিত্রিক সনদপত্র

চারিত্রিক সনদপত্র

নতুন চাকরির জন্য, বিদেশে যাওয়ার জন্য, স্কুল-কলেজ কিংবা বিশ্ববিদ্যালয় ভর্তির জন্য সব জায়গায় চারিত্রিক সনদ পত্রের দরকার হয়। 

Character Certificate বা চারিত্রিক সনদপত্র একজন মানুষের চরিত্রের মধ্যে কোনো দাগ আছে কি নাই সে সম্পর্কে সাক্ষ্য দেয়। অর্থাৎ কোন ব্যক্তির বিরুদ্ধে খারাপ রেকর্ড অথবা অপরাধমূলক রেকর্ড অথবা আদালতে মামলা নেই তার প্রমাণ দেয় চারিত্রিক সনদপত্র। এটিকে অনেকটা পুলিশ ক্লিয়ারেন্স সার্টিফিকেট ও বলা চলে।

বিভিন্ন ধরনের চারিত্রিক সনদপত্র হয়ে থাকে। যেমনঃ চাকরি সনদ, ছাত্রদের জন্য চারিত্রিক সনদ, চেয়ারম্যান বা কাউন্সিলের ধারা চারিত্রিক সনদ, পুলিশ ক্লিয়ারেন্স চারিত্রিক সনদ, সরকারি কর্মকর্তা কর্তৃক চারিত্রিক সনদ।

কার কাছ থেকে চারিত্রিক সনদ পেতে পারেন

আপনার এলাকার যে কেউ আপনাকে ভালো বলে দিলেই তো সবাই তা বিশ্বাস করবে না। কিন্তু যদি একজন বিশ্বস্ত মানুষ আপনাকে ভালো বলে তখন বিশ্বাস হতে পারে আপনি ভালো।

আপনার এলাকার সম্মানিত এবং বিশ্বাসী লোক যখন আপনার নামে লিখিত আকারে জানাবে যে আপনি একজন ভালো মানুষ। সমাজে আপনি কোন ক্ষতিকর কাজে জড়িত ছিলেন না। তখন আপনার উপর আস্থা রাখা যেতে পারে। ঠিক এরকম যার যার এলাকার সম্মানিত বা বিশ্বস্ত লোকের দ্বারা লিখিত  সনদকেই বলা হয় চারিত্রিক সনদপত্র। 

আপনার কি জন্য চারিত্রিক সনদপত্র দরকার সেটার উপর নির্ভর করছে আপনি কার কাছ থেকে তা নিবেন। 

যদি আপনার চাকরিতে যোগ দেয়ার জন্য দরকার হয় তাহলে এলাকার চেয়ারম্যান,কাউন্সিলর অথবা সরকারি গেজেটেড অফিসার কর্তৃক চারিত্রিক সনদপত্র সত্যায়িত করে নিতে হবে। 

আর যদি স্কুল কলেজ কিংবা বিশ্ববিদ্যালয়ে ভর্তির জন্য চারিত্রিক সনদপত্রের দরকার হয় তবে পূর্বের শিক্ষা প্রতিষ্ঠান প্রধানের কাছ থেকে নিতে হবে। 

আমরা এখানে চারিত্রিক সনদপত্রের একটি নমুনা দিব। শুধুমাত্র দেখার জন্য। অরিজিনাল চারিত্রিক সনদপত্র আপনাকে ইউনিয়ন পরিষদ থেকে সংগ্রহ করতে হবে।

Character-Certificate

বিডিপপুলারে আপনাকে স্বাগতম!

আপনার লেখা বিডিপপুলারে পাবলিশ করবেন কিভাবে?