রক্ত কি

রক্ত কি

হৃদপিণ্ড প্রতিনিয়ত রক্ত পাম্প করছে। একজন মানুষের ২৪ ঘন্টায় শিরা ও ধমনীর মধ্য দিয়ে ৮০০০ গ্যালন রক্ত পাম্প করে হৃদপিণ্ড। পাম্প করা রক্তের মস্তিষ্কে যায় শতকরা ১৫ ভাগ, কিডনিতে যায় শতকরা ২৫ ভাগ, পেশিতে যায় শতকরা ২০ ভাগ। 

রক্ত কি

মানুষ এবং উচ্চশ্রেণির মেরুদন্ড প্রাণীর দেহে লাল রঙের এক প্রকার তরল সংবহনতন্ত্র রয়েছে যা কোষে প্রয়োজনীয় পদার্থ যেমন পুষ্টি এবং অক্সিজেন সরবরাহ করে এবং বিপাকীয় বর্জ্য পদার্থগুলোকে একই কোষ থেকে দূরীভূত করে তাকে রক্ত বলে। 

রক্ত একপ্রকার তরল যোজক কলা। ধমনী, শিরা ও কৌশিক জালিকার মধ্য দিয়ে রক্ত নিয়মিত প্রবাহিত হয়। একজন মানুষের গড়ে ৫ থেকে ৬ লিটার রক্ত থাকে। 

হৃদপিণ্ড নিজের জন্যও কিছু রক্ত সরবরাহ করে। রক্তে দুটি উপাদান রয়েছে রক্তকণিকা ও রক্তরস।

হালকা হলুদাভ রক্তের তরল অংশকে রক্ত রস বলে। প্রাণীর রক্ত তরলের ৫৫% রক্ত রস থাকে। 

রক্তের প্রধান উপাদান দুইটি

সেগুলো হলো জৈব ও অজৈব।

রক্তে ৩ ধরনের কণিকা রয়েছে। লোহিত রক্তকণিকা, শ্বেত রক্তকণিকা ও অনুচক্রিকা।

লোহিত রক্তকণিকা

সবচেয়ে বেশি লোহিত রক্ত কণিকা থাকে মানুষের শরীরে। অক্সিজেন পরিবহন করে লোহিত রক্তকণিকা। লোহিত রক্ত কণিকায় হিমোগ্লোবিন আছে। এই কণিকার গড় আয়ু ১২০ দিন।

শ্বেত রক্তকণিকা

এর মধ্যে হিমোগ্লোবিন থাকে না। এটি দেহের জীবাণু ধ্বংস করে। শ্বেত রক্তকণিকার গড় আয়ু ১ থেকে ১৫ দিন। 

অনুচক্রিকা

অনুচক্রিকা রক্ত জমাট বাঁধতে সাহায্য করে। এর গড় আয়ু ৫ থেকে ১০ দিন।

বড় কোনো অপারেশন, দুর্ঘটনায় রক্তক্ষরণ, প্রসূতি রক্তক্ষরণ, ক্যান্সার রোগী, অগ্নিদগ্ধ রোগী, রক্তস্বল্পতা ইত্যাদি রোগের চিকিৎসায় রক্ত পরিসঞ্চালন প্রয়োজন হয়। একজন মানুষের শরীর থেকে আর একজন মানুষের শরীরে চাইলেই রক্ত সঞ্চালন করা যায় না। 

রক্তের লোহিত কণিকা ও রক্তরসে রাসায়নিক পদার্থের কিছু পার্থক্যের কারণে রক্তকে বিভিন্ন গ্রুপে ভাগ করা হয়েছে। যেমন: A, B, AB, O

বিডিপপুলারে আপনাকে স্বাগতম!

আপনার লেখা বিডিপপুলারে পাবলিশ করবেন কিভাবে?