টেলিমেডিসিন কী

বর্তমান যুগে টেলিমেডিসিন খুব কঠিন একটা কোন ব্যাপার নয়। কারণ আমরা অজান্তেই এর সুফল ভোগ করে আসতেছি। এই সময়ের প্রতিটি সেক্টর এর উন্নতির সাথে সাথে অবশ্যই চিকিৎসাবিজ্ঞানে উন্নতি সাধিত হয়েছে। 

তথ্যপ্রযুক্তির এই যুগে যত দ্রুত সম্ভব তথ্য আদান-প্রদান করাটাই হল মুখ্য উদ্দেশ্য। আপনারা ইতিমধ্যে বিভিন্ন সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম এবং অন্যান্য যোগাযোগ মাধ্যম গুলো ব্যবহার করতেছেন। সেখানে আপনারা দেখেছেন আপনি এক দেশে বসে অন্য দেশের ব্যক্তির সাথে খুব সহজেই মুহূর্তেই যোগাযোগ করতে পারতেছেন।

যেহেতু আপনি এক দেশে বসে অন্য দেশের ব্যক্তির সাথে খুব সহজেই যোগাযোগ করতে পারতেছেন এবং দীর্ঘ সময় ধরে কথা বলতে পারতেছেন তাই নিশ্চয়ই যদি সে ব্যাপারটি অন্য কোন ব্যক্তি না হয়ে যদি ডাক্তার হয় তাহলে কেমন হয়।

টেলিমেডিসিন হল তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তির সাহায্য নিয়ে পৃথিবীর ভৌগোলিক দূরত্বের যেকোনো স্থানে অবস্থানরত রোগীকে বিশেষজ্ঞ চিকিৎসক রোগ নির্ণয় কেন্দ্র ও বিশেষায়িত নেটওয়ার্কে সমন্বয়ে স্বাস্থ্য সেবা দেওয়াকে টেলিমেডিসিন বলা হয়।

অর্থাৎ আপনি দেশের ভিতরেই হোক অথবা দেশের বাইরে হোক যে কোনো স্থানের কোন বিশেষজ্ঞ ডাক্তারের চিকিৎসা সেবা নিতে পারবেন খুব সহজেই যেটা বর্তমানে তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তির মাধ্যমে সম্ভব।

আপনি এই সুবিধার কারণে যেকোনো উন্নত দেশে চিকিৎসা খুব সহজেই নিজ দেশে বসে নিতে পারবেন যদিও এখানে অনেক লিমিটেশন থাকে তারপরেও আপনি তো তাদের পরামর্শ নিতে পারতেছেন।

টেলিমেডিসিন সেবা টি আরো উন্নত থেকে উন্নত করার চেষ্টা করা হচ্ছে যেন রোগী প্রয়োজনীয় যন্ত্রপাতি সহ অন্য কোন দেশে ডাক্তারের সরাসরি চিকিৎসা নিতে পারে। 

বর্তমানে গ্রাম অঞ্চলে দেখা যায় যে রোগীরা ইউনিয়ন তথ্যসেবা কেন্দ্রে গিয়ে ভিডিও কনফারেন্সিং এর মাধ্যমে স্বাস্থ্য অধিদপ্তর কর্তৃক ডাক্তারদের নিকট হতে টেলিমেডিসিন সেবা গ্রহণ করে। তাছাড়া এখন অনেক অ্যাপস বের হয়েছে যে সকল অ্যাপসের মাধ্যমে ডাক্তাররা রোগীদের ফোন কলের মাধ্যমে স্বাস্থ্য সেবা দিয়ে থাকে। 

আশাকরি টেলিমেডিসিন নিয়ে আপনার আর কনফিউশন থাকার কথা নয়।

বিডিপপুলারে আপনাকে স্বাগতম!

আপনার লেখা বিডিপপুলারে পাবলিশ করবেন কিভাবে?

Leave a Comment