রোজা রাখার নিয়ত

সামনে আসছে রমজান মাস। পবিত্র এই রমজান মাসে আল্লাহ তা’আলা প্রাপ্তবয়স্ক মুসলমান নারী পুরুষের জন্য রোজা পালনের নির্দেশ দিয়েছেন। অর্থাৎ প্রাপ্তবয়স্ক সকল মুসলমান নারী এবং পুরুষের জন্য রোজা ফরজ।

আমরা রোজা রাখার মাধ্যমে কিন্তু আল্লাহর নৈকট্য ও তাকওয়া লাভ করতে পারি। রমজান মাসে আমরা কিন্তু আমাদের অন্তর্জগৎ ভালো করে প্রস্তুত করতে পারি। অন্তর্জগৎ প্রস্তুত করার মাধ্যমে খোদাভীতি জায়গা করে নিতে পারা যায়।

রোজা পালন নিয়ে মহান আল্লাহ তা’আলা বলেন – হে মুমিন সকল তোমাদের উপর রমযানের রোযা ফরয করা হয়েছে যেমনি ভাবে তোমাদের পূর্ববর্তীদের উপর ফরজ করা হয়েছিল। যাতে তোমরা তাকওয়া অর্জন করতে পারো।

আমরা সবাই জানি ইসলামের মোট পাঁচটি স্তম্ভ রয়েছে। এ পাঁচটি স্তম্ভের মধ্যে রোজা একটি অন্যতম স্তম্ভ। রোজা রাখার প্রতিদান হিসেবে মহান আল্লাহতা’লা বলেছেন যে – তিনি রোজা রাখার প্রতিদান নিজ হাতে দিবেন। এবং আমাদের জন্য রোজা শব্দটি খুবই সম্মানজনক একটি শব্দ।

রোজা রাখার অনেকগুলো উদ্দেশ্য রয়েছে। এগুলো উদ্দেশ্য গুলো থেকে কয়েকটি উদ্দেশ্য তুলে ধরা হলো।

  • সুবেহ সাদিক থেকে সূর্যাস্ত যাওয়া পর্যন্ত কোনরকম পানাহার করা যাবে না।
  • মিথ্যাচার পাপাচার করা যাবে না।
  • ভোগবিলাস থেকে নিজেকে সম্পূর্ণ নিষিদ্ধ করতে হবে।

রোজা রাখার উদ্দেশ্য গুলো নিয়ে পরবর্তীতে আরো ভালো করে একটি পোস্ট করা হবে ইনশাআল্লাহ।

পবিত্র রমজান মাসে রোজা রাখার জন্য আপনাকে সহিহ ভাবে রোজার নিয়ত করতে হবে। নিয়ত করতে ভুল করা যাবেনা এবং নিয়তের সঠিক উচ্চারণ আপনাকে জানতে হবে। যেহেতু আমরা শুধুমাত্র আরবি পড়তে জানি কিন্তু এর মূল অর্থটা কখনোই জানা হয়ে ওঠেনা। রোজার নিয়ত করার পাশাপাশি আপনি যদি রোজার নিয়তের আরবি অক্ষর এর বাংলা অর্থ কি জেনে রাখেন তাহলে সহিহ ভাবে রোজার নিয়ত আপনি অন্তর থেকে করতে পারবেন।

রোজা রাখার নিয়ত

নাওয়াইতু আন আছুম্মা গাদাম মিন শাহরি রমাজানাল মুবারাকি ফারদাল্লাকা, ইয়া আল্লাহু ফাতাকাব্বাল মিন্নি ইন্নিকা আনতাস সামিউল আলিম।

নিয়তের বাংলা অর্থ

হে আল্লাহ! আমি আগামীকাল পবিত্র রমজানের তোমার পক্ষ থেকে নির্ধারিত ফরজ রোজা রাখার ইচ্ছা পোষণ (নিয়্যত) করলাম। অতএব তুমি আমার পক্ষ থেকে (আমার রোযা তথা পানাহার থেকে বিরত থাকাকে) কবুল কর, নিশ্চয়ই তুমি সর্বশ্রোতা ও সর্বজ্ঞানী।

বিডিপপুলারে আপনাকে স্বাগতম!

আপনার লেখা বিডিপপুলারে পাবলিশ করবেন কিভাবে?